| ১১ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৭শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৩ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী | বুধবার

গৃহবধুকে কুপিয়েছে মাদক সম্রাট ও সন্ত্রাসী রুবেল

লক্ষন বর্মন, নরসিংদী : নরসিংদীর হাজীপুরে সীমানা বিরোধকে কেন্দ্র করে এক গৃহবধুকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে মাদক সম্রাট হিমাংসু ও সন্ত্রাসী রুবেল। শনিবার সন্ধ্যায় উপশহর হাজীপুর দাসপাড়া এলাকায় এ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। আহত গৃহবধুর নাম গীতা রানী দাস (২৫)। তার স্বামীর নাম ডাক্তার রাজন বর্মন। সে হাজীপুর এলাকার প্রানকৃষ্ণ বর্মনের মেয়ে। গীতাকে গুরুতর আহত অবস্থায় সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার পিঠে ও ঘাড়ে প্রায় ৩০টি সেলাই দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কর্তব্যরত ডাক্তার। তার ঘাড়ের রগ কেঁটে যাওয়ায় বর্তমানে সে মুমুর্ষ অবস্থায় হাসপাতালের বিছানায় কাতরাচ্ছে। এঘটনায় সন্ত্রাসী রুবেল ও মাদক সম্রাট হিমাংশু সহ ছয় জনকে আসামী করে আজ রবিবার নরসিংদী সদর মডের থানায় মামলা দায়ের করলেও পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।
পুলিশ ও এলাকাবাসী জানিয়েছেন, গাড়ীর ইলেক্ট্রিক মেকানিক্স পান্না মিস্ত্রি ১৯৮০ সালের দিকে হাজীপুর এলাকার একটি বৃহৎ বাড়ি ক্রয় করেন। তার একে একে নয়টি মেয়ে হওয়ায় সে তার এক ভাই ও একমাত্র ভাতিজাকে বাড়িতে জায়গা দেন। পুত্র সন্তান না থাকায ভাই ও ভাতিজ কে হাতের কাজ শিখিয়ে সাবলম্ভী করে তোলেন। মানবতার উজ্জল দৃষ্টান্ত হয়ে ভাই-ভাতিজাকে অর্ধেক বাড়িও লিখে দেন। কিন্তু নয় কন্যা সন্তানের পর একটি পুত্র সন্তান জন্ম নেয়ার পর থেকেই শুরু হয় শত্রুতা। ভাতিজা রুবেল নিজে সন্ত্রাসের পাশাপাশি মাদক সম্রাট হিমাংশু দাসের মেয়েকে বিয়ে করে হাতকে শক্তিশালী করেন। সম্প্রতি কয়েক বছর পূর্বে পান্না মিস্ত্রি মৃত্যুবরন করলে তার পরিবার ও মেয়েদের উপর চালায় অবর্ননিয় নির্যাতন। শনিবার বাড়িতে ঘরের কাজ শুরু করলে সন্ত্রাসী রুবেল ও তার শশুর সহ কয়েকজন কাজে বাধা দেয়। প্রতিবাদ করতে গেলে কয়েকজন মিলে পান্না মিস্ত্রির মেয়েদেরকে এলাপাথারি মারপিট করে। তর্কতির্কের একপর্যাযে রুবেল পন্না মিস্ত্রির মেয়ে গীতাকে হত্যা করবে বলে দা দিয়ে কুপিয়ে ঘাড় ও পিঠ কেটে ফেলে। রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থা এখনও আশংকাজনক বলে জানিয়েছেন ডাক্তার।

 

সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গেলাম মোস্তফা জানিয়েছেন, মহিলার উপর সন্ত্রাসী হামলা ও কুপিয়ে আহতের ঘটনায় মামলা নেয়া হয়েছে। আসামী গ্রেফতারের জন্য পুলিশ অভিযান চালিয়েছে। দ্রুত আসামীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।
#

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *