| ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং | ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ৩রা রজব, ১৪৪১ হিজরী | শুক্রবার

স্ত্রীর পরকীয়ার বলিদান স্বামী, ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি, হত্যাকারী প্রেমিক তামজিদ গ্রেপ্তার

লক্ষন বর্মন, নরসিংদী প্রতিদিন: নরসিংদীর চিনিশপুরে শশুড় বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার পথে স্ত্রীর সামনে সুজন সাহা (৩৪) নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনার রহস্য উদঘাটন করেছে সদর মডেল থানা ও গোয়েন্দা পুলিশ। হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে শুক্রবার রাতে স্ত্রী অদ্বিতী সাহার পরকীয়া প্রেমিক তামজিদ (১৮) কে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। গ্রেপ্তারের পর ১৯ আগস্ট শনিবার (সন্ধ্যায়) হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক দিয়েছে তামজিদ। পুলিশ তামজিদের স্বীকারোক্তিমতে রক্তমাখা কাপড় ও হত্যায় ব্যবহৃত চাপাতিটি উদ্ধার করেছে। অভিযুক্ত তামজিদ নরসিংদী শহরের ভেলানগর মহল্লার ফেরদৌস মিয়ার ছেলে।
জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক রুপণ কুমার সরকার ও সদর থানার তদন্তকারী কর্মকর্তা তাপস কান্তি রায় জানান, গত বুধবার (১৬ আগস্ট) রাতে ঢাকা থেকে নরসিংদীস্থ শশুর বাড়ী বেড়াতে যাওয়ার পথে স্ত্রীর সামনেই দুর্বৃত্তের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে খুন হন ঢাকার পীবেরবাগ এলাকার সুজন সাহা (৩৪)। এ ঘটনায় নরসিংদী সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের হয়। পরে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় মামলার তদন্ত করতে গিয়ে মোবাইল ফোনের একটি এসএমএস এর সূত্র ধরে শুক্রবার রাতে আটক করা হয় তামজিদকে।
আটকের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তামজিদ পুলিশকে জানায়, অদ্বিতী সাহার সাথে বিগত প্রায় ৫ বছর যাবৎ তামজিদের প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। হিন্দু-মুসলমান হওয়ায় পরিবার তাদের প্রেমের সম্পর্ক মেনে নেয়নি। একপর্যায়ে ৫ মাস আগে পরিবার জোরপূর্বক ঢাকার সুজন সাহার সঙ্গে অদ্বিতী সাহার বিয়ে দিয়ে দেন। বিয়ের পরও প্রেমিক তামজিদের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ রক্ষা করতে থাকে অদ্বিতী সাহা। পরে স্বামী সুজন সাহা ও তার পরিবারের লোকজনের চোখে ধরা পড়ে স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক। এ নিয়ে স্বামী সুজন সাহা স্ত্রী অদ্বিতীকে গালি দিয়ে শাসায়। এতে ক্ষিপ্ত হয় তামজিদ। পরে অদ্বিতী সাহা সংসার আর ভাল লাগছে না কিছু একটা করার জন্য বলে প্রেমিক তামজিদকে। ঘটনার দিন অদ্বিতী সাহা স্বামীকে নিয়ে নরসিংদীতে তার বাবার বাড়ীতে মনসা পূজায় অংশগ্রহণের জন্য বেড়াতে আসছিল। আসার সময় অদ্বিতী সাহা স্বামীকে নিয়ে ট্রেনে নরসিংদী নেমে বাবার বাড়ী যাবে বলে এসএমএস’র মাধ্যমে প্রেমিককে জানিয়ে দেয়। এ তথ্য পেয়ে তামজিদ তার বাসা থেকে চাপাতি নিয়ে সাদা গেঞ্জির কাপড়ে প্যাঁচিয়ে বাড়ী থেকে বের হয়ে পড়ে এবং ঘটনাস্থলের পাশের ঝোঁপে অপেক্ষা করতে থাকে। ঘটনাস্থল চিনিশপুর কালিমন্দির এর সন্নিকটে পৌছালে মুখোশধারী তামজিদ সুজন সাহাকে এলাপাতাড়ি কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে পালিয়ে যায়।

Print Friendly, PDF & Email

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published.