| ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২০শে মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী | শনিবার

নরসিংদীর বেলাবতে শোক দিবসের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

নরসিংদী প্রতিদিন : নরসিংদীর বেলাবতে জাতীয় শোক দিবসের মিলাদ ও কাঙ্গালীভোজের নয় হাজার টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ উঠেছে চরউজিলাব ইউনিয়নের আওয়ামীগের সেক্রেটারী বেলায়েত হোসেন বুলবুলের বিরুদ্ধে। অত্র ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল কাশেম আলকাছ সহ ইউনিয়নের অন্যান্য নেতারা এ অভিযোগ করেন। এ উপলক্ষে শনিবার সন্ধ্যায় চর উজিলাব গ্রামের আয়েশা আক্তার কিন্ডার গার্টেন মাঠে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আবুল কাশেম আলকাছের সভাপতিত্বে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম সহ একাধিক নেতারা অভিযোগ করেন, জাতীয় শোক দিবস পালনের জন্য উদ্ধতন নেতারা কাঙ্গালীভোজ ও মিলাদের জন্য উক্ত সেক্রেটারীকে নয় হাজার টাকা প্রদান করে। উক্ত টাকা তিনি ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদককে প্রদান করেনি। এমনকি নিজেও মিলাদ বা কাঙ্গালীভোজে খরচ করেননি।
প্রতিবাদ সভায় স্থানীয় আওয়ামীগের একাধিক নেতা বলেন, বর্তমান ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি সাধারণ সম্পাদক ওয়ার্ড কমিটির সাথে দলীয় কর্মকান্ডের সমন্বয় না করে বিভিন্ন কার্য সম্পাদন করে থাকে। তারা ওয়ার্ড কমিটিদের এড়িয়ে চলে।
সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলুবুল এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার পারিবারিক অসুবিধার কারণে টাকা পৌছাতে দেরি হয়। ছাত্র রাজনীতি থেকে আজ আমি আওয়ামীলীগের চর উজিলাব ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি। মাত্র ৯ হাজার টাকার জন্য আমি আমার নিজেকে বিসর্জন দিতে পারিনা।
এই সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শমসের জামান ভূইয়া রিটন, ইউপি চেয়ারম্যান প্রফেসর মোঃ আক্তারুজ্জামান, সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ রফিকুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা ছিদ্দিকুর রহমান, বারৈচা বাজার কমিটির সহ সভাপতি ছায়েদ আলীসহ অন্যান্যরা। ওয়ার্ড সভাপতি সম্পাদকের বক্তব্য শুনে উপজেলা সভাপতি, সাধারন সম্পাদক বুলবুলকে এসব অভিযোগের ব্যাখ্যা দেয়ার জন্য বলেন। বুলুবুল এসব অভিযোগ অস্বিকার করে বলেন, আমার পারিবারিক অসুবিধার কারণে টাকা পৌছাতে দেরি হয়। তবে আমি অত্মসাত করার জন্য নয় সাময়িক অসুবিধার জন্য সময়মতো তাদের হাতে টাকা পৌছাতে পারিনায়। তিনি আরো বলেন, ছাত্র রাজনিতি থেকে আজ আমি আওয়ামীলীগের চর উজিলাব ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি। মাত্র ৯ হাজার টাকার জন্য আমি আমার নিজেকে বিসর্জন দিতে পারিনা।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি, সাধারন সম্পাদকদের নিয়ে বিষয়টি নিষ্পত্ত্বি করার আশ্বাস দেন। পরে উপস্থিত নেতাকর্মীরা সাধারন সম্পাদকের বহি:ষ্কারের দাবী জানিয়ে স্থান ত্যাগ করেন।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *