| ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২০শে মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী | শনিবার

নরসিংদীতে হত্যা মামলায় ৫ জনের যাবৎজীবন কারাদন্ড

লক্ষন বর্মন, নরসিংদী প্রতিদিন: নরসিংদীতে সাদেকুর রহমান হত্যা মামলায় ৫ জনের যাবৎজীবন কারাদন্ড প্রদান করেছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার বিকেলে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ শাহীন উদ্দিন এ রায় প্রদান করেন। একই সাথে প্রত্যেক আসামীকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৪ বছর সশ্রমকারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।
সাজাপ্রাপ্ত আসামীরা হলেন,১। মিজানুর রহমান, ২। মোস্তফা, উভয় পিতা-আব্দুল বাসেদ,৩। ফিরোজ পিতা আব্দুল আলী, ৪। আসাদ,পিতা – মৃত কাশেম আলী, ৫। মকবুল হোসেন পিতা- আবু নাঈম,সর্ব সাং হাসনাবাদ,থানা রায়পুরা,জেলা নরসিংদী।
আসামীদের মধ্যে মিজানুর রহমান ও ফিরোজ ছাড়া বাকী আসামীরা পলাতক আছে।
ঘটনার সংক্ষিপ্ত বিবরণ থেকে জানা গেছে, রায়পুরা উপজেলার দক্ষিণ মির্জানগর গ্রামের মৃত শফিকুল ইসলামের পুত্র কাজী সাদেকুর রহমান তপনকে ১৯৯২ সালের ১৩ অক্টোবর রাতে দুস্কৃতকারীরা হাসনাবাদ বাজারের বশির মৃধা ও বোরহান উদ্দিনের দোকানের সামনে থেকে তাকে বেড়ানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে যায়। সে দিন রাতেই তাকে হাসনাবাদের ঘোড়ামারা ব্রীজের নিচে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করে লাশ ফেলে রেখে চলে যায়। পরের দিন এলাকার লোকজন লাশ দেখে বাড়ীতে খবর দিলে তার আত্মীয়-স্বজনরা ঘটনাস্থলে গিয়ে তপনের লাশ সনাক্ত করে। এব্যাপারে তপনের চাচা নূর মোহাম্মদ সরকার বাদী হয়ে মিজানুর রহমান নামে এক ব্যক্তিকে আসামী করে রায়পুরা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। দীর্ঘ ৭ বছর তদন্ত শেষে রায়পুরা থানা পুলিশ মিজানুর রহমানসহ ১২ জনকে আসামী করে তপন হত্যাকান্ডের চার্জশীট প্রদান করে। আসামীরা আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দীতে হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করে। স্বাক্ষীদের জবানবন্দী আসামীদের স্বীকারোক্তির উপর উভয় পক্ষের দীর্ঘ শোনানী ও ব্যাপক পর্যালোচনা শেষে গতকাল দীর্ঘ ২৫ বছর পর বিজ্ঞ বিচারক ৫ জনের যাবজ্জীবন এবং প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরো ১ বছর করে সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। বাকী আসামীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় তাদেরকে বেকসুর খালাস প্রদান করে।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *