1. nahidprodhan143@gmail.com : নরসিংদী প্রতিদিন : নরসিংদী প্রতিদিন
  2. khandakarshahin@gmail.com : Breaking News : Breaking News
  3. laxman87barman@gmail.com : laxman barman : laxman barman
  4. narsingdipratidin.mail@gmail.com : narsingdi :
  5. news@narsingdipratidin.com : নরসিংদী প্রতিদিন : নরসিংদী প্রতিদিন
  6. msprovat@gmail.com : ms provat : ms provat
  7. hsabbirhossain542@gmail.com : সাব্বির হোসেন : সাব্বির হোসেন
  8. subeditor@narsingdipratidin.com : Narsingdi Pratidin : Narsingdi Pratidin
মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:০২ অপরাহ্ন



রোহিঙ্গা শরনার্থীদের মুখে হাসি ফুটাতে গিয়ে বাড়ি ফিরল লাশ হয়ে

রিপোর্টারের নাম
  • প্রকাশিত সোমবার, ৩০ অক্টোবর, ২০১৭

লক্ষন বর্মন,নরসিংদী প্রতিদিন: হৃদয় নিঙ্গানো ভালোবাসা আর মানবতার টানে কক্সবাজারে উখিয়ায় রোহিঙ্গা শরণার্থীদের শিবিরে ত্রান নিয়ে ছুটে গিয়েছিলেন সিলেটের বিয়ানী বাজারের ৭ বস্ত্র ব্যাবসায়ী। সেখানকার মানুষ গুলোর মুখে একটু হাসি ফুটাতে নগদ টাকা ও খাবারের পাশপাশি এক হাজার কম্বল নিয়ে যান তারা। দুই দিন সেখানে অবস্থান করে ত্রান সামগ্রী বিতরন করেন। সোমবার সকালে মাইক্রোবাস যোগে সিলেটের বিয়ানী বাজারে যাচ্ছিল। মুশুলধারে বৃষ্টির মধ্যে মাইক্রোবাসটি ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নরসিংদী ও নারায়নগঞ্জের সিমান্তবর্ত্তী এলাকা কান্দাইলে পৌছলে বিপরিত দিক থেকে আসা একটি যাত্রীবাহী বাসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে হয়। এতে ঘটনাস্থলেই চার জন নিহত হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পর মারা যায় আরো দুই জন। এর কিছুক্ষন পর একই সড়কে জেলার শিবপুর উপজেলা কারারচর নামক স্থানে যাত্রীবাহী বাস ও লেগুনার মধ্যে সংঘর্ষে আরো তিন জন নিহত হয়। পৃথক দুইটি সড়ক দূর্ঘটনায় ৯ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছ কমপক্ষে ১০ জন। আজ সোমবার সকাল ৮টায় ও সকাল ১০টায় পৃথক দূর্ঘটনায় এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলেন বিয়ানীবাজারের মাথিউরা গ্রামের ব্যবসায়ী আবদুল করিম, একই উপজেলার ছোট দেশের খায়রুল বাশার খান , শ্রীধরা গ্রামের জুবের আহমদ, কাকরদিয়া গ্রামের ইকবাল হোসেন, কসবার বাবুল আহমদ ও মাইক্রোবাস চালক বাবুল হোসেন। মাইক্রোবাস চালকের বাড়ি কোথায় তা জানা যায়নি। গুরুত্বর আহত হয়েছেন মাইক্রোবাসের দুই যাত্রী। তারা হলো হাফিজ উদ্দিন ও দেলোয়ার হোসেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য তার হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।
শিবপুরের কারারচরে দূর্ঘটনায় নিহতরা হলে গ্রামের আরমান মিয়া (৫০), ও সৈয়দনগর গ্রামের মাসুম মিল্লাহ ও সুজন মিয়া (২৫)।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, নরসিংদী থেকে একটি যাত্রীবাহী বাস নারায়ণগঞ্জ যাচ্ছিলেন। ঢাকা সিলেট মহাসড়কের সদর উপজেলার কান্দাইলে যাত্রীবাহী বাসটি পৌছলে বিপরীত দিক থেকে আসা ঢাকা থেকে সিলেটগামী একটি মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মাইক্রোবাসটি ধুমড়ে মুচড়ে যায়। দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলে চালকসহ ৪ জন নিহত হয়। আহত ৪ জনকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও ২ জনের মৃত্যু হয়। দুর্ঘটনায় মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সড়কের দুই পাশে ৫ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের লোক ঘটনাস্থলে পৌছে নিহতের লাশ উদ্ধার করে। পরে দুর্ঘটনাস্থল থেকে দুর্ঘটনাকবলিত গাড়ি সরিয়ে নিলে দেড় ঘন্টা পর যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। এদিকে বিকেলে সদর হাসপাতালের মর্গ থেকে নিহতদের লাশ নিয়ে সিলেটের উদ্যেশে রওনা দেয় স্বজনরা।
দুর্ঘটনার পর উদ্ধারকাজ অংশ নেয়া কান্দাইল গ্রামের মোক্তার হোসেন বলেন, সকালে বাড়ি থেকে বিকট শব্দ শুনতে পাই। আমাদের ধারণা ছিল সড়কের কোন গাড়ির চাকা বিস্ফোরিত হয়েছে। কিন্তু পড়ে শুনি বাস ও মাইক্রোবাসের ভয়াবহ সংঘর্ষ হয়েছে। আমরা দৌড়ে এসে দেখি ছড়িয়ে ছিটিয়ে লাশ পড়ে রয়েছে। লাশের ভয়াবহতা দেখে অনেকে ভয় পেয়ে যায়। আমরা ঘটনাস্থলে ৪ জনের লাশ পেয়েছি। মাইক্রোবাসের বাকী ৪ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছি।
আরেক প্রত্যক্ষদর্শী আলী হোসেন বলেন, এই স্থানটিতে নিয়মিত বড় বড় দুর্ঘটনায় বহু মানুষের প্রাণহানি ঘটছে। এখানে রোড ডিভাইডার তৈরী করলে এই দুর্ঘটনা কমবে বলে আমরা মনে করছি।
দুর্ঘটনায় নিহতদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠায় পুলিশ। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে স্বজন ও সহকর্মী ব্যবসায়ীরা সদর হাসপাতালের মর্গে ছুটে আসে। সেখানে কথা হয় নিহত ব্যবসায়ী ইকবাল আহমেদের ভাতিজা জুয়েল আহমেদের সঙ্গে। তিনি জানান, রোহিঙ্গাদের ত্রাণ দেয়ার জন্য গত বৃহস্পতিবার রাতে চাচা (ইকবাল আহমেদ) বন্ধু ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কক্সবাজারের টেকনাফে গিয়েছিলেন। কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অংশ খুবই খারাপ হওয়ায় তাঁরা কাঁচপুর ঘুরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক দিয়ে বিয়ানীবাজার ফিরছিলেন। আর পথে সড়ক দুর্ঘটনায় চালক ও ৫ বন্ধু মারা গেছেন।
ঘটনার প্রতক্ষ্যদর্শী আনিসুল বলেন, সকালে মুশুলধারে বৃষ্টি হচ্ছিল। হঠাৎ বিকট একটি শব্দ। দৌড়ে রাস্তার কাছে গিয়ে দেখি মাইক্রোবাসটি দিয়ে ধুমড়ে মুচড়ে রাস্তার এক পাশে পড়ে আছে। সড়কের উপর পড়ে আছে এক জনের মৃত দেহ। পরে পুলিশকে খবর দেয়া হয়।
দূর্ঘটনায় নিহত খায়রুল বাশার খান এর চাচাতো ভাই আশ্রাফুল বাশার খান বলেন, রোহিঙ্গাদের ত্রাণ দিতে বৃহস্পতিবার রাতে আমার ভাই সহ ৭ জন ব্যাবসায়ী সিলেট থেকে কক্সবাজারের উখিয়ার উদ্যেশে রওনা দেয়। সেখানে শুক্র ও শনিবার অবস্থান করে রোহিঙ্গাদের শিবিরে নগদ টাকা,খাবার ও কম্বল বিতরন করেন। এরপর রোববার কক্সবাজার ঘোরাফেরা করে ওইদিন রাতেই মাইক্রোবাস যোগে সিলেটের উদ্দেশে রওনা হয়। সোমবার দুপুরে খবর পাই তারা নরসিংদীতে দূর্ঘটনায় মারা গেছে। বলতে বলতেই কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। তিনি আরো বলেন, মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে গিয়ে বাড়ি ফিরল লাশ হয়ে।
নরসিংদী ফায়ার সার্ভিস উপ সহকারী পরিচালক মজিবুর রহমান চৌধুরী বলেন, মাইক্রোবাসের চাকা বিস্ফোরণ হয়ে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। নিহতদের সকলের বাড়ি সিলেটের বিয়ানীবাজার বলে জানিয়েছে পুলিশ।
মাধবদী থানা উপ-পরিদর্শক উত্তম কুমার বিশ্বাস বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে দেখি গাড়ীর একপাশ ছিড়ে গেছে। গাড়ীর ভেতরে ৩টি লাশ ও বাহিরে একটি লাশ পড়ে আছে। গুরুত্বর আহতবস্থায় দুইজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানোর পর তাদের মৃত্যু হয়।
মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ইলিয়াছ বলেন, নিহতদের পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের অনুমতিতে বিনা ময়নাতদন্তে লাশ স্বজনদের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। কান্দাইল এলাকাটি দুর্ঘটনা প্রবণ এলাকা। প্রাথমিক ভাবে আমাদের ধারণা, বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোয় এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। তবে দুর্ঘটনার পর চালক পালিয়েছে। দুর্ঘটনা কবলিত গাড়ি দুটি আটক করা হয়েছে। এই ব্যাপারে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
এদিকে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬ জনের জানাজা মঙ্গলবার সকাল ১০টায় বিয়াণীবাজার সরকারি কলেজ প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হবে। এতে শোকাহত সকলের উপস্থিতি কামনা করেছেন বিয়াণীবাজার পৌরসভার মেয়র আবদুস শুকুর ও বিয়ানীবাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সভাপতি আজাদ উদ্দিন।
এদিকে বেলা ১০টার দিকে একই মহাসড়কের জেলার শিবপুর উপজেলার কারারচর বিসিক শিল্পনগরী এলাকার মদিনা জুট মিলের সামনে ঢাকা থেকে সিলেটগামী দিগন্ত পরিবহনের যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে ইটাখোলা থেকে নরসিংদীগামী লেগুনা মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে লেগুনার ১ জন যাত্রী ঘটনাস্থলে নিহত এবং অবস্থায় আহত অবস্থায় ৬ জনকে জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরো ২ জন নিহত হয়। নিহতরা হলো, নরসিংদী শিল্পকলা একাডেমী ও কারারচর মৌলভী তোফাজ্জল হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী আরমান মিয়া (৫০), অন্য দুজন হলো সুজন (২৪) ও মামুন মিয়া।
ইটাখোলা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইন্সপেক্টর হাফিজুর রহমান বলেন, দুর্ঘটনা কবলিত গাড়ি দুইটি আটক করা হয়েছে। তাদেও সবার বাড়ী শিবপুর উপজেলায়।

#

follow and like us:
0

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
শাহিন আইটির একটি অঙ্গ-প্রতিষ্ঠান