1. nahidprodhan143@gmail.com : নরসিংদী প্রতিদিন : নরসিংদী প্রতিদিন
  2. khandakarshahin@gmail.com : Breaking News : Breaking News
  3. laxman87barman@gmail.com : laxman barman : laxman barman
  4. narsingdipratidin.mail@gmail.com : narsingdi :
  5. msprovat@gmail.com : ms provat : ms provat
  6. hsabbirhossain542@gmail.com : সাব্বির হোসেন : সাব্বির হোসেন
  7. subeditor@narsingdipratidin.com : Narsingdi Pratidin : Narsingdi Pratidin
বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ০১:০১ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
রায়পুরার আদিয়াবাদ ইউপি’র চেয়ারম্যান পদে উপ নির্বাচনে নৌকা প্রার্থীর বিজয় শিবপুরে ৭১টি পুজা মন্ডপে অনুদান প্রদান নরসিংদীর রায়পুরার আদিয়াবাদ ইউপির উপ-নির্বাচনের ভোট গ্রহণ চলছে নরসিংদীতে বেলাব প্রেস ক্লাবের নির্বাচন সম্পন্ন- শেখ জলিল সভাপতি- হানিফ সাধারণ সম্পাদক আড়াইহাজরে শেখ রাসেলের জন্মদিন পালিত মাধবদীতে শেখ রাসেল এর ৫৭ তম জন্মদিন উদযাপন অতিরিক্ত আইজি শাহাব উদ্দীন পুলিশের একটি ব্র্যান্ড: আইজিপি মাধবদীতে আগুনে ভস্মীভূত দুই কারখানা-ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা নরসিংদীতে বেঙ্গল ডোর এক্সক্লুসিভ শপ এর শুভ উদ্বোধন বেলাব প্রেস ক্লাবের নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন, আচরণবিধি লংঘন করলে কঠোর ব্যবস্থা

নরসিংদীতে বঙ্গবন্ধুর নাম ভাঙ্গিয়ে ব্যাপক চাঁদাবাজি লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে সংঘবদ্ধ চক্র

রিপোর্টারের নাম
  • প্রকাশিত শনিবার, ২ ডিসেম্বর, ২০১৭

লক্ষন বর্মন, নরসিংদী প্রতিদিন : নরসিংদীতে বঙ্গবন্ধু মেধাবৃত্তি নামে চলছে ব্যাপক চাঁদাবাজীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালীর নাম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এমন মহান ব্যক্তির নামে জাতি আজ গর্বীত। তার নামে জাতি দূর্বল। তাই সাধারণ মানুষের এই দূর্বলতাকে কাজে লাগাচ্ছে একটি প্রতারক সংঘবদ্ধ চক্র । এই মহান নেতার নাম ভাঙ্গিয়ে গত ২ বছর যাবত ব্যাপক চাঁদাবাজীর মতো নেক্কারজনক ঘটনাও ঘটছে। লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে চট্রগ্রামের বাসিন্দা সাজ্জাদ হোসেন নামে এক ব্যক্তি। তার সহযোগী নরসিংদী সরকারী কলেজের অনার্স (তয় বর্ষের) পড়–য়া ছাত্র নরসিংদী শহরের ব্যাংক কলোনীর এলাকার জয় ঘোষ এবং বেলাব উপজেলার রবিন। নরসিংদীতে নেই কোন তাদের অফিস বা ঠিকানা। এই সংঘবদ্ধ চক্রটি ১ম শ্রেনী থেকে ৮ম শ্রেনী পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু মেধাবৃত্তি ২০১৭ এর নামে নরসিংদীর বিভিন্ন স্থানে ব্যানার ও পোষ্টারে ছেয়ে দিয়েছে। এছাড়াও গত ৩০দিন যাবত বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এবং লাইব্রেরীতে বঙ্গবন্ধু মেধাবৃত্তি ফরম পাওয়া যায় বলে ব্যানারে ও পোষ্টারে বিজ্ঞপ্তি দেয়। কিন্তু দেখা যায় ওই সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও লাইব্রেরীতে ফরম আনতে গেলে সেখানে ২০০ টাকা করে ফরম নিতে হয় বলে দাবী করেন। তাই বাধ্য হয়ে ২০০ টাকা করে ফরম নিতে হচ্ছে সাধারণ মানুষদের। বর্তমানে প্রায় ৩ হাজার ফরম ৬ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে ওই চক্রটি। এছাড়াও বঙ্গবন্ধু নাম শোনে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিকরা আবার টাকাসহ বিভিন্ন টেপ ও কম্পিউটার ডোনেট করছে তাও হাতিয়ে নিচ্ছে ওই সংঘবদ্ধ চক্রটি। সাধারণ জনগনের সাথে প্রতারনা করছে ফরমে বা বিজ্ঞপ্তিতে কবে পরিক্ষা বা পরিক্ষার কেন্দ্র কোথাও বলা হয়নি। অথচ খোঁজ খবর নিয়ে দেখা যায় বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন বা অন্য কোন প্রশাসনের কারো কাছ থেকে তাদের কোন অনুমোদন নেই। ফলে বঙ্গবন্ধুর নাম ভাংগিয়ে বঙ্গবন্ধু মেধাবৃত্তি নাম করে চলছে ব্যাপক চাঁদাবাজি করছে। যা লাখ লাখ টাকা শুধু সাজ্জাদ হোসেন, জয় ঘোষ ও রবিন মধ্যে বন্টন করে পকেট ভারি করছে। প্রতারণা করছে সাধারণ জনগনের সাথে। এমনই অভিযোগ করেন ভোক্তভোগিরা।
বঙ্গবন্ধু মেধাবৃত্তি-এর নির্বাহী পরিচালক সাজ্জাদ হোসেন বলেন, আমরা কারোর কাজ থেকে জোর করে ২০০ টাকা আদাই করছি না। স্ব-ইচ্ছায় টাকা দিয়ে ফরম নিচ্ছে। বঙ্গবন্ধু মেধা বৃত্তি করতে কারো অনুমোদন প্রয়োজন নেই। আমরা কোন চাঁদাবাজী করিনি।
প্রাইম জুনিয়র হাই স্কুলের অধ্যক্ষ বাহারুল হক সরকার জানায়, গত ২০১৬ সালে বঙ্গবন্ধু মেধাবৃত্তি নাম ভাঙ্গিয়ে ৩ হাজার ছাত্রছাত্রীর কাছ থেকে ২শত টাকা করে ফরম বিক্রি করে। এছাড়াও অতিথির কাছ থেকে ডোনেট নেয়। প্রায় ১০/১২ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় এই সংঘবদ্ধ চক্রটি। তারা ১ম থেকে ৮ম শ্রেনীর প্রায় ৫ শত ছাত্রছাত্রীদের পরিক্ষার মাধ্যমে বৃত্তি দেওয়ার কথা থাকলেও প্রায় ২০ জনকে পুরষ্কার দিয়েছে কি না আমার জানা নেই।
নরসিংদী আইডিয়াল হাই স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মনজিল-এ মিল্লাত বলেন, গত বছর(২০১৬) বঙ্গবন্ধুর মেধা বৃত্তি পরিক্ষা আইডিয়াল হাই স্কুলে পরিক্ষার জন্য ভ্যানু দেয়া হয়েছিল। শুধু বঙ্গবন্ধুর নাম থাকায়। তার বিনিময়ে কোন টাকা স্কুলকে দেওয়া হয়নি। তখন দেখা গেছে সম্পূর্ন অব্যবস্থাপনা ছিল পরিক্ষায়। এবং সঠিক মানে মেধা যাচাইবাচাই করা হয়নি। বৃত্তিপ্রাপ্তদের সঠিক ভাবে পুরষ্কারও দেওয়া হয়নি।
বঙ্গবন্ধু মেধাবৃত্তি-২০১৭ এর ব্যানারে ও পোষ্টারে লিখা হয়েছে নরসিংদী জেলা ছাত্রলীগের সহযোগিতায় কিন্তু এ ব্যাপারে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইছাক খলিল বাবু বলেন, নরসিংদী সরকারী কলেজের ছাত্র জয় ঘোষ আমাকে বলেছে বঙ্গবন্ধু মেধাবৃত্তি বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন থেকে অর্থায়ন করা হবে। কারো কাছ থেকে কোন টাকা নেওয়া হবে না। ব্যানারে জেলা ছাত্রলীগ সহযোগিতার কথা লিখা থাকবে তার জন্য অনুমোতি চাইলে শুধু অনুমোতি দেওয়া হয়। এর বেশি কিছু আমি জানি নেই। এখন যা শুনছি এ অন্যায় কাজের সাথে আমি আগেও ছিলাম না এবং এখনো নেই। শুনেছি ২শত টাকা করে ফরম বিক্রি নামে চাঁদাবাজি করছে তা কোন ভাবে মেনে নেওয়া যায় না। বঙ্গবন্ধুকে জাতীর কাছে খাট করছে তার জন্য ওই সংঘবদ্ধ চক্রকে আইনের আওতায় আনার জন্য প্রশাসনের কাছে অনুরোধ করেন।
এ ব্যাপারে বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মোজাম্মেল হক বলেন, আমরা বঙ্গবন্ধু মেধাবৃত্তির জন্য কাউকে কোন অনুমোতি দেওয়া হয়নি। কেউ যদি বঙ্গবন্ধুর নাম ভাঙ্গিয়ে ২০০ টাকা করে ফরম বিক্রি নামে চাঁদা বাজি করে ব্যক্তিস্বার্থ লাভবান হয় তার দ্বায়দায়িত্ব বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন নিবে না। আমাদের মহান নেতা বঙ্গবন্ধুকে ছোট করলে তাদেরকে আইনশৃঙ্খলার বাহিনীর হাতে তুলে দিতে সাধারণ জনগনদের প্রতি তিনি আহবান জানান।
এদিকে নরসিংদী-৩ আসনের সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা জানায়, গত বছর বঙ্গবন্ধু নাম থাকায় আমি বঙ্গবন্ধু মেধাবৃত্তি পুরস্কার অনুষ্ঠানে যাই। কিন্তু পরে খবর নিয়ে জানা যায় তাদের কোন অনুমোদন নাই এবং বঙ্গবন্ধুর নাম ভাঙ্গিয়ে লাখ লাখ টাকা তারা হাতিয়ে নিয়েছে একটি চক্র। এ বছরও শুনেছি ওই চক্রটি আবার বঙ্গবন্ধুর মেধাবৃত্তির নাম করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার প্রায়তারা করছে। জাতীর কাছে এই চক্রটি আমাদের মহান নেতা বঙ্গবন্ধুকে খাট করছে। তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন বিষয়টি মেনে নেওয়া যায়না। বঙ্গবন্ধুর নাম ভাঙ্গিয়ে অসৎ উদ্দেশ্যে এই চক্রটি আওয়ামী লীগ এবং আমাদের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সস্মানহানী করছে। তাই তাদেরকে আইনের আওতায় আনার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেন।
এ ব্যাপারে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী ও নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি লেঃ কর্নেল (অবঃ) নজরুল ইসলাম হিরু বীর প্রতিক এমপি বলেন, বিষয়টি আমার জানা ছিলনা। অনুমোদন না নিয়ে কিছু স্বার্থনিশি একটি চক্র ব্যক্তিস্বার্থে বঙ্গবন্ধুকে সম্মান হানি করবে বঙ্গবন্ধু মেধাবৃত্তির নাম ভাঙ্গিয়ে, ২শত টাকা ফরম বিক্রি নামে চাঁদা বাজী করবে, আবার ডোনেশন নিবে তা মেনে নেওয়া যায়না। তাদেরকে আইনের আওতায় আনার জন্য পুলিশ প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্টদেরকে অনুরোধ করেন।

follow and like us:
0

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

প্রয়োজনে ফোন করুন- ০১৭১৩৮২৫৮১৩

শাহিন আইটির একটি অঙ্গ-প্রতিষ্ঠান