1. nahidprodhan143@gmail.com : নরসিংদী প্রতিদিন : নরসিংদী প্রতিদিন
  2. khandakarshahin@gmail.com : Breaking News : Breaking News
  3. laxman87barman@gmail.com : laxman barman : laxman barman
  4. narsingdipratidin.mail@gmail.com : narsingdi :
  5. news@narsingdipratidin.com : নরসিংদী প্রতিদিন : নরসিংদী প্রতিদিন
  6. msprovat@gmail.com : ms provat : ms provat
  7. hsabbirhossain542@gmail.com : সাব্বির হোসেন : সাব্বির হোসেন
  8. subeditor@narsingdipratidin.com : Narsingdi Pratidin : Narsingdi Pratidin
সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:১৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে মাধবদী থানা ছাত্রলীগের খাবার বিতরণ শিবপুরে বমসা’র প্রকল্প উদ্বোধন উপলক্ষে কর্মশালা অনুষ্ঠিত প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে মানবিক মেয়র কামরুলের উদ্যোগ: নরসিংদীতে সেলাই মেশিন ও হুইল চেয়ার পেল শতাধিক দুস্থ কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সম্পন্ন যুদ্ধ রোবট উন্মোচন ইরানের আইএসের হুমকিতে আফগানিস্তান ছাড়ছে হিন্দু ও শিখরা অবশেষে ঘুম ভাঙল নারায়ণগঞ্জ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের ধর্ষনের বিচার দাবিতে ময়মনসিংহে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল বিটিভির সাবেক মহাপরিচালক ওয়াজেদ আলী খানের মৃত্যু কাপ্তাইয়ে ভ্রাম্যমান অভিযানে ৭দোকান হতে জরিমানা আদায় মাধবদীতে মানব কল্যান সেবামূলক প্রতিষ্ঠান ও ইসলামী পাঠাগারের বর্ষপূর্তি উদযাপন



এবারও হচ্ছে না নরসিংদী জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বইমেলা

রিপোর্টারের নাম
  • প্রকাশিত শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক,নরসিংদী প্রতিদিন: নরসিংদীতে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সম্প্রতি উন্নয়ন মেলা ও এসএমই মেলা হয়েছে। ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা হচ্ছে। সরকারি যত উন্নয়ন মেলা আছে সব মেলার আয়োজন হয়েছে নরসিংদীতে। কিন্তু গতবছর থেকে বইমেলা হচ্ছে না। এতে হতাশা প্রকাশ করেছেন পাঠক, লেখক, সংস্কৃতিকর্মী, বই বিক্রেতা, বইপ্রেমীসহ সংশ্লিষ্ট সবাই।

জানা গেছে, ২০১৬ সালে কলেজের মাঠে ১৫ দিনব্যাপী বইমেলার আয়োজন করেছিল প্রশাসন। সে বছর শতাধিক বইয়ের দোকান, হাজার হাজার পাঠকের সমাগম এবং সাহিত্য-সংস্কৃতিকর্মীদের কর্মোদ্দীপনায় মুখরিত ছিল বইমেলার প্রাঙ্গন। মেলায় প্রতিদিনের সাংস্কৃতিক আয়োজনে ছিল প্রবন্ধ পাঠ, পাঠের সমালোচনা এবং বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর পরিবেশনা।

এমন আয়োজনে অংশগ্রহণ করার জন্য সারাবছর অপেক্ষায় থাকে সংগঠন এবং প্রতিষ্ঠানগুলো। কিন্তু এমন চমৎকার আয়োজনের শেষ সময়ে এসে জেলা প্রশাসকের সাথে কলেজ কর্তৃপক্ষের অনভিপ্রেত দূরত্ব তৈরি হয়।

কলেজ সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার দিন কলেজের দারোয়ান ইদ্রিস মিয়া(৫৮) বইমেলায় প্রবেশের পকেট গেইট খোলা রেখে মূল ফটকে তালা দিয়ে মসজিদে নামাজ পড়তে যান। সেই সময়ে তৎকালীন জেলা প্রশাসক আবু হেনা মোর্শেদ জামান তার গাড়িতে করে বইমেলা প্রাঙ্গনে আসেন। ফটকে তালা দেওয়া থাকায় তিনি গাড়ি নিয়ে বইমেলার অনুষ্ঠানস্থল পর্যন্ত যেতে পারেননি। এতে তিনি ক্ষুব্ধ হন। সে সময় ইদ্রিস মিয়াকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে আটকে রাখাও হয়। ঘটনার পর থেকে(যদিও কলেজ প্রাঙ্গনে মেলা হচ্ছে) কলেজের তৎকালীন অধ্যক্ষকে যথাযথ মূল্যায়ন করা হয়নি এমন অভিযোগ তোলে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এর প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে শ্লোগান দিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে। এই ঘটনাগুলোতে জেলা প্রশাসনের সাথে কলেজ কর্তৃপক্ষের দূরত্ব সৃষ্টি হয়। এরপর থেকে পারতপক্ষে এই পথ মাড়াতে চান না প্রশাসনের লোকজন।

স্থানীয় লেখক ও শিক্ষাবিদ কালাম মাহমুদ বলেন, আমি চাই প্রাণের বইমেলা নরসিংদী সরকারি কলেজের মাঠেই হোক। একথা আমি প্রস্তুতি সভায়ও জোর গলায় বলে এসেছি। সভায় কলেজের প্রতিনিধি অধ্যাপক মো. শফিকুল ইসলাম সেসময় অনার্স পরীক্ষা চলবে জানালে তখন নরসিংদী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষের সাথে কথা বলে এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানানো হয়। এরপরে বইমেলা না হলে সেটা দুঃখজনক।

নরসিংদী বিজ্ঞান কলেজের বাংলা বিষয়ের শিক্ষক নাজমুল আলম বলেন, নরসিংদীতে বইমেলা প্রতিবছরই হতো কিন্তু গতবছর থেকে হচ্ছে না। বিভিন্ন সময়ে উপজেলা মাঠে, আইডিয়াল স্কুলের মাঠে, স্টেডিয়ামের বাইরের খোলা চত্বরে বইমেলা আয়োজনের পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে জেলার সবচেয়ে বড় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নরসিংদী সরকারি কলেজের মাঠে এসে থিতু হয়েছিল।

কলেজ মাঠের বইমেলার আয়োজনে ব্যাপক সাড়া পাওয়া যায়। বড় মাঠ এবং বেশি সংখ্যক মানুষের সম্মিলন হওয়ার কারনে পাঠক, সংস্কৃতিকর্মী, বই ব্যবসায়ীসহ সকলেই চান কলেজ মাঠে বইমেলা হোক।

সংস্কৃতিকর্মী মাইনুল রহমান বলেন, নরসিংদী সরকারি কলেজে বইমেলার আয়োজন আমাদের প্রাণের সাথে মিশে আছে। আমরা সংস্কৃতিকর্মীরা একটি উদ্দীপনা এখান থেকে পাই। ঢাকার বইমেলায় তো সবাই যেতে পারেন না। আমি কলেজ মাঠের বইমেলাকে মনে করি একটি সুযোগ। যেখানে বইমেলায় ঘুরতে এসে একটি দুটি বই কেনা যায়, সাংস্কৃতিক পরিবেশনা উপভোগ করা যায় এবং নিজেকে ঋদ্ধ করা যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন বই বিক্রেতা বলেন, সৃজনশীল বই সারাবছর বিক্রি হয় না। বইমেলায় বই বিক্রি করে সারাবছরের ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়া যায়। আমরা হিসেব করে দেখেছি, সর্বশেষ অনুষ্ঠিত বইমেলায় প্রায় ৪০-৪২ লাখ টাকার বই পাঠকদের ঘরে চলে গিয়েছিল। কিন্তু নরসিংদী সরকারি কলেজ বাদে অন্য কোথাও মেলার আয়োজন হলে এমনভাবে পাঠকের সমাগম হয় না এবং স্টলগুলোতে বইও বেশি বিক্রি হয় না।

কলেজ কর্তৃপক্ষের সাথে মনোমালিন্যের কারনেই বইমেলার আয়োজন অনিশ্চিত কিনা জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, সেরকম কোন ব্যাপার নেই। আমরা নরসিংদী সরকারি কলেজে বইমেলার আয়োজন করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু কলেজ কর্তৃপক্ষ আমাদের জানিয়েছে, কলেজে সেসময় দুটি শিক্ষাবর্ষের অনার্স পরীক্ষা চলবে তাই অন্য কোথাও মেলার আয়োজন হলে ভালো হয়।

এদিকে প্রশাসনের কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তা ছুটিতে থাকায় এখনো বইমেলার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া যায়নি। তবে, পৌরসভার মেয়র সাটিরপাড়া সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে বইমেলা করার উদ্যোগ নিয়েছেন। সেখানে আমরা সহযোগিতা করবো।

এই বিষয়ে নরসিংদী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মো. আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, বইমেলা আয়োজনের ব্যাপারে কেউ আমাদের সাথে যোগাযোগ করেনি। কলেজে বইমেলা হোক, এটা আমরাও চাই। তবে কলেজ ক্যাম্পাসের ভেতরে মেয়েদের হোস্টেল থাকায় একটু সমস্যা হয়।

follow and like us:
0

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
শাহিন আইটির একটি অঙ্গ-প্রতিষ্ঠান