| ১১ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৭শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৩ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী | বুধবার

নরসিংদীতে সুদী ব্যবসায়িদের অত্যাচারে অতিষ্ট সাধারণ মানুষ

সাইফুল ইসলাম রুদ্র

নরসিংদী প্রতিদিন,বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৮:

নরসিংদীতে সুদী ব্যবসায়িদের অত্যাচারে অতিষ্ট এলাকাবাসী , শত শত পরিবার বাড়ি ছাড়ছে,অনেকে সুদী টাকা পরিশোধ করতে না পেরে আত্মহত্যা করছে, সুদী টাকা আদায়ে শত শত মামলা হচ্ছে। নরসিংদীর ৬টি উপজেলায় ৭১টি ইউনিয়নের প্রায় দেড় হাজারের বেশী সুদী ব্যবসায়ি দীর্ঘদিন যাবৎ বিভিন্ন গ্রামে শহরের আনাচে কানাচে সুদী ব্যবসা করে আসছে। সাইকেল ব্যবসায়ী রনো দত্তের নরসিংদী শহরে জমজমাট ব্যবসা ছিল।নরসিংদীতে ছিল তার জননী সাইকেল স্টোর নামে একটি বড় দোকান।

প্রভাব আর প্রতিপত্তির কোন কমতি ছিল না। এরপর ব্যবসা প্রসারের জন্য তিনি চড়া সুদে টাকা নেন। আর এটাই হলো তার কাল। নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার মরজাল ইউনিয়নের শওকত আলীর কাছ থেকে ২ লাখ টাকা নিয়ে ব্যবসায় বিনিয়োগ করেন। কিন্তু সুদী ও আসল টাকা দিতে দিতে পেরেশান তারা মিয়া ভয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বসবাস করছে। পলাশতলী গ্রামের জমজমাট ব্যবসা ছিল।

তারাও সুদের টাকা দিতে না পেরে গোপনে ঘরবাড়ি ও দোকানপাট ছেলে পালিয়ে বসবাস করছে। এই ভাবে সুদের খপ্পরে পরে হাজার হাজার পরিবার বাড়িঘর ছাড়া বা আত্মহত্যা করে আসছে অনেকে। সুদের টাকার বিষয়ে নরসিংদীর বিভিন্ন আদালতের পেশকারদের দেওয়া প্রাপ্ত তথ্যমতে, সুদখোরদের দায়ের করা এমন চার শাতাধিক মামলা বিচারাধীন রয়েছে। এছাড়াও শত শত ব্যবসায়ী ঘর বাড়ি দোকান ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ফেলে রেখে মাসের পর মাস পালিয়ে বেড়াচ্ছে সুদখোরদের ভয়ে। এদের ভয়ংকর সন্ত্রাসী বাহিনী আছে, এই বাহিনী দিয়ে তারা বিভিন্ন ভয় ভীতি মারধর করে। ইতিমধ্যে সুদের টাকা পরিশোধ করতে না পেরে শিবপুর এলাকার ঠিকাদার মৃত্যুবরণ করেন। এরা ১ লাখ টাকায় প্রতি মাসে ১০ থেকে ২০ হাজার টাকা সুদ নেয়।

এই মোটা অংকের সুদ গুনতে হিমশিম খেতে হয় ব্যবসায়ীদের। পরবর্তীতে আসল টাকা দিলেও সুদের টাকা আদায়ে চেক ও স্ট্যাম্পে তিন থেকে চারগুন বেশি পরিমান টাকা বসিয়ে আদালতে মামলা ঠুকে দেয়। এইভাবে চড়া সুদের ব্যবসা করে এক একজন সুদে ব্যবসায়ী কোটি কোটি টাকার গাড়ির এবং আলিশান বাড়ির মালিক হয়েছেন। এরা যখন যে সরকার ক্ষমতায় আসে সেই সরকারের দলীয় নেতাদের ছত্রছায়াই থেকে এই ব্যবসা চালিয়ে যায়। এদিকে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে নরসিংদী জেলায় জমজমাট ভাবে সুদের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

জেলার হাজারো সুদখোর গোটা জেলাব্যাপী দাপিয়ে বেড়ালেও তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কোন ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না। এই সমস্ত সুদখোররা সরকারী ও বেসরকারী ব্যাংক থেকে কোটি কোটি টাকা লোন নিয়ে এই ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। এছাড়া বিভিন্ন ভুইফোড় সমিতি ও এনজিওর নামে দাদন ব্যবসা চালিয়ে সামাজিক বিশৃংখলা সৃষ্টি করা হচ্ছে।

বিষয়টি নিয়ে মানবাধিকার কর্মী জানান, সুদের ব্যবসার ব্যপারে বেশ কয়েকজন আমাকে মৌখিকভাবে জানিয়েছেন। তবে এখনো কেউ লিখিত অভিযোগ দায়ের করেননি। লিখিত অভিযোগ পেলে আমি তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য আবেদন করব।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *