| ২৫শে জুন, ২০১৯ ইং | ১১ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২০শে শাওয়াল, ১৪৪০ হিজরী | মঙ্গলবার

চলছে পরিবহন ধর্মঘট যাত্রীদের থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়, যাত্রী ও পরিক্ষার্থীদের ভোগান্তি

লক্ষন বর্মন/এস.এম.শরীফ হোসেন, নরসিংদী প্রতিদিন, রবিবার ২৮ অক্টোবর ২০১৮: সকাল ৬টা হতে দেশব্যাপী চলছে ৪৮ ঘন্টার পরিবহন ধর্মঘট। ৮ দফা দাবিতে বাংলাদেশ পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকে এ ধর্মঘটে দেশের বিভিন্ন স্থানে নানান অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া গেলেও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বাগবাড়ী, পুরিন্দা, কান্দাইল, ছনপাড়া, আধুরিয়া, গাউশিয়া, পাচঁরুখি, এলাকায় এখন পর্যন্ত কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। বাস ট্রাক চলাচল স্বাভাবিকভাবে বন্ধ আছে। এছাড়া লেগুনা, রিক্সা, অটোরিক্সা চলাচল স্বাভাবিক আছে। কোন ধরনের মিছিল মিটিং বা ভাঙ্গচুড় দেখা যায়নি। সব মিলিয়ে পরিবেশ রয়েছে স্বাভাবিক।

এদিকে,ধর্মঘটে বাস চলাচল বন্ধ থাকায় সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ চরমে উঠে। কর্মস্থলে যাতায়াতের জন্য দীর্ঘ লাইনে দাড়িয়ে লেগুনা, রিক্সা করে চলতে হচ্ছে। আর ধর্মঘটের এ সূযোগকে কাজে লাগিয়ে এক শ্রেণীর অসাধু লেগুনা,রিক্সা ড্রাইভাররা যাত্রীদের কাছ থেকে আদায় করছে অতিরিক্ত ভাড়া।যেখানে গাউছিয়া হতে পুরিন্দা লেগুনা ভাড়া পূর্ব থেকেই বেশী আদায় করে জনপ্রতি ১৫ টাকা নিত সেখানে ধর্মঘটের কারণে গাড়ী সংকট দেখিয়ে ২০ টাকা ভাড়া আদায় করছে। একইভাবে কান্দাইল বাসষ্ট্যান্ড হতে মাধবদী পর্যন্ত লেগুনাতে জনপ্রতি পূর্ব ভাড়া যেখানে ১০ টাকা নিত আজ সেখানে ১৫ /২০ টাকা আদায় করছে।। অন্যদিকে এসব এলাকা হতে যারা ঢাকা বা দুর দুরান্তের যাত্রী তাদেরকে আজ ঘরেই বসে দিন কাটাতে হচ্চে।

কথা হয় নারায়ণগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজের মাস্টার্স ফাইনাল পরিক্ষার্থী অলকার সাথে। সে জানায় ৮ দফা দাবিতে বাংলাদেশ পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকে এ ধর্মঘটের কারনে পরিক্ষার হলে যেতে ভূগান্তিতে পড়েছি। কোন বাস পাওয়া যাচ্ছেনা। রিক্সা বা সিএনজি দিয়ে যেতে হলে বেশি ভাড়া গুনতে হবে। তার পরও পরিক্ষা দিতে যেতে হবে। শুধু পরিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে সরকার নিজেস্ব পরিবহন রাস্তায় থাকলে সুবিধে হত।

সকাল থেকে নরসিংদী বাস টার্মিনাল থেকে কোন দূরপাল্লার বাস ছেড়ে যায়নি। বন্ধ রয়েছে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে ও আঞ্চলিক সড়কের বাস চলাচল। এতে চরম দূর্ভোগে পড়েছে যাত্রীরা। পায়ে হেটে ও রিক্সায় চড়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে তাদের।
এদিকে আজ সকাল থেকে নরসিংদী বাস টার্মিনালের সামনে সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে রেখেছে পরিবহন শ্রমিকরা। এছাড়া ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বিভিন্ন জায়গায় বাস-ট্রাক সড়কে রেখে সড়ক অবরোধ করে রেখেছে তারা।
মাধবদী থেকে নরসিংদী আসতে আগে ভাড়া গুনতে হত ১০ টাকা। আজ বাংলাদেশ পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকার ধর্মঘটের কারনে ভাড়া গুনতে হচ্ছে ৫০ টাকা জনপ্রতি। মাধবদী থেকে পাচঁদোনার ভাড়া ২০ টাকা, পাচঁদোনা থেকে সাহেপ্রতাবের ভাড়া ২০ টাকা, সাহেপ্রতাব থেকে নরসিংদী পুরাতন বাসস্ট্যান্ড বা ভেলানগরের ভাড়া ১০/১৫ টাকা। প্রতিটি মোড়ে পরিবহন শ্রমিকদের মহড়া চলছে। তাদের চোঁখের সামনে দিয়ে কোন পাইভেটকার কিংবা রিক্সাও যেতে দিচ্ছেনা।
ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে কথা হয় ভৈরব থেকে ঢাকাগামী মোমেন খান নামে এক যাত্রীর সাথে। তিনি জানান, সকালে ভৈরব থেকে রওয়ানা দিয়েছিলাম ঢাকা যাওয়ার জন্য। কিন্তু নরসিংদী এসে পরিবহন ধর্মঘটের কারণে রাস্তা বন্ধ থাকায় নেমে যেতে হয়েছে। বিকল্প কোন যানবাহন না থাকায় অনেকটা পথ হেটে এসেছি। তারপরও কোন যানবাহন পাইনি। এখন ঢাকাও যেতে পারছিনা, ভৈরবও ফিরে যেতে পারছিনা।
যাত্রীদের দাবী,শীঘ্রই যেন এ সমস্যার সমাধাণ কল্পে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয় কতৃপক্ষ।যাতে করে ভবিষ্যতে এমন সমস্যার সম্মুখীন হতে না হয়।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *