| ২০শে জুলাই, ২০১৯ ইং | ৫ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৬ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী | শনিবার

ঘুষ ছাড়াই পুলিশের চাকরি পেলেন পলাশের আফরিন

মোঃ সাব্বির হোসেন | নরসিংদী প্রতিদিন- রবিবার, ৭ জুলাই ২০১৯:
যেখানে পুলিশের চাকরি পেতে লক্ষ লক্ষ টাকা ঘুষ দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া যেতো সেখানে এবার ঘুষ ছাড়াই পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকরি হয়েছে আফরিন আক্তারের। এতে আনন্দ উল্লাসের মধ্য দিয়ে সময় পার হচ্ছে তার পরিবারের সদস্যদের। পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগের আগে থেকেই নরসিংদীর পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিন আহম্মেদ (বিপিএম পিপিএম) ঘোষণা দিয়েছিলেন কোন প্রকার ঘুষ ছাড়াই চাকরি পাবে কনস্টেবল পদের প্রার্থীরা। এমন আশ্বাসে মেধা যাচাইয়ের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে নরসিংদীর পলাশের দরিদ্র বাবার মেয়ে আফরিন আক্তার একটি উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ পেলেন। সরকারি নিয়ম অনুযায়ী মাত্র ১০০ টাকার ব্যাংক ড্রাফট দিয়ে চাকরি হলো তার।

পলাশ উপজেলার জিনারদী ইউনিয়েনর গাবতলী গ্রামের আশ্রাফ আলীর তিন মেয়ের মধ্যে সবার বড় মেয়ে আফরিনা আক্তার। তার মায়ের নাম সুফিয়া বেগম। পিতা আশ্রাফ আলী ঘোড়াশাল পৌরসভার নৈশ প্রহরীর চাকরি করেন। সে ২০১৮ সালে পলাশ থানা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশ করে এইচএসসিতে পলাশ থানা সেন্ট্রাল কলেজে দ্বিতীয় বর্ষে অধ্যয়নরত ছিল।

জানা যায়, ঘুষ ছাড়া চাকরি পাবেন এমন আশায় নিয়ে ২৪ জুন নরসিংদী পুলিশ লাইনে বাছাই পরীক্ষায় অংশ নেয় আফরিনা আক্তার। গত কয়েক দিন বিভিন্ন পরীক্ষায় সম্পন্ন করে পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকরির বিষয়টি নিশ্চিত হয়।

এদিকে শুক্রবার দুপুরে পুলিশ ভেরিফিকেশনে গিয়ে পলাশ থানার ওসি ( তদন্ত) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা ও এসআই মাহবুবুর রহমান হামিদ আফরিনা আক্তারকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। এসময় তার পরিবারের সদস্যের উপস্থিতিতে খানিকটা সময়ের জন্য এখানে আনন্দঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

আফরিনা আক্তার তার অনুভূতি প্রকাশ করে বলেন, একটি ভাল চাকরি পাওয়ায় প্রথমেই আমি মহান আল্লাহ তায়া’লার শুকরিয়া আদায় করি। পড়া লেখা শেষে ভাল একটি চাকরি পাবো এমনটিই আশা করেছিলাম। কিন্তু পড়ালেখা শেষ হবার আগেই সরকারি চাকরি পেয়ে আমার বাবার স্বপ্ন পূরন করতে পেরেছি। বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে যেমন ঘুষ ছাড়া চাকরি দিয়েছে তেমনি আমিও কখনো ঘুষ খাব না।এ চাকরি পাওয়ায় অনেক খুশি হয়েছি।
আফরিনা আক্তারের বাবা আশ্রাফ আলী বলেন, আমার কোন ছেলে নেই। সে আমার পরিবারের বড় মেয়ে হিসেবে তাকে নিয়েই আশা ভরসা ছিল। আমি খুবই খুশি হয়েছি আমার মেয়ে সরকারি চাকরি পাওয়াতে। আমার মেয়ে আমার স্বপ্ন পূরন করেছে।আমি ধন্যবাদ জানাই সরকারকে, ধন্যবাদ জানাই নরসিংদীর পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিন আহম্মেদ মহোদয়কে।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *