| ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ৩রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৮ই মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী | বুধবার

মাধবদীতে বিধবার বসতবাড়ী দখলের পায়তারা

নিজস্ব প্রতিবেদক | নরসিংদী প্রতিদিন-
শনিবার, ১৩ জুলাই ২০১৯:
নরসিংদীর মাধবদী বিরামপুর এলাকার মৃত: অজিত কুমার দাসের স্ত্রী সাধনা রানী দাসের কাছ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে বসত বাড়ি হাতিয়ে নেওয়ার অভিযােগ উঠেছে।

সাধনা রানী দাস নরসিংদী প্রতিদিনকে জানান, র্দীঘ ১৫ বছর আগে আমার স্বামী মারা যায়। স্বামী মারা যাওয়ার পূর্বে বসত বাড়ির ১৩ শতাংশ জায়গা আমার নামে দলিল করে দিয়ে যায়। এরপর থেকে আমি এক ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে বসবাস করে আসছি। মেয়ে সবিতা রানী দাসকে বিবাহ দেওয়ার পূর্বে ছেলে অতন চন্দ্র দাস রত্না রানী দাসকে বিবাহ করে। কিছুদিন যেতে না যেতেই রত্না রানী দাস আমার ছেলে অতন চন্দ্র দাসকে আমার বসত বাড়িটি তার নাম লিখে দেওয়ার জন্য প্রায়ই মানসিক অত্যাচার করে আসছিল। এক পর্যায়ে রত্না রানী দাস আমার ছেলে অতন দাসকে তার বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে গিয়ে সে জানায় হঠাৎ করে অতন চন্দ্র দাসকে নাকি খোঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এরপর র্দীঘদিন আমার ছেলের বউ আমার বাড়িতে বসবাস করতে থাকে। কিছুদিন পূর্বে আমার ছেলের বউ আর তার আত্মীয় শিবু চন্দ্র শাখারী(৪০) রত্না রানী শাখারী(৩৫) চদন চন্দ্র দাস(৩৫) পুতুল রানী শাখারী(৩৫) আমার বাসায় আসে এবং বসতবাড়ি খারিজ করে দেওয়ার নামমে গত ২৩ জুন আমার স্বাক্ষর নেয়। আমি অশিক্ষিত হওয়ায় না বুঝেই দলিল স্বাক্ষর করি। এটা নিয়ে আমার সন্দেহ হলে বিষয়টা আমি স্থানীয় লােকদের জানাই। তখন স্থানীয় লােকেরা জানায় বিষয়টি শুনে বলেন যে, জায়গা খারিজ করতে কােন প্রকার স্বাক্ষর প্রয়ােজন হয় না । এসময় তারা আরাে বলেন, দেখ তােমার সরলতার সুযােগকে কাজে লাগিয়ে তােমার ছেলের বউ প্রতারনা করে তােমার জায়গা হাতিয়ে নেয়। পড়ে আমি লােক মারফত জানতে পারি আমার জায়গা খারিজ করার নামে পাওয়ার করিয়ে নিয়েছে। এখন আমি আশঙ্কায় আছি বিবাদীগণ আমার জমি নিজের নাম দলিল করার পায়তারা করছে। এ ব্যাপার মাধবদী থানায় একটি সাধারন ডায়রী করা হয়। এ অসহায় অবস্থায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *