| ৯ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৫শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১১ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী | সোমবার

মাধবদী জালপট্টি মসজিদের ইতিহাস

এমদাদুল ইসলাম খোকন | নরসিংদী প্রতিদিন-
বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০১৯: জালপট্টি মসজিদ বলা হয় প্রতি সোমবার দিন নিকটবর্তী স্থানে মাছধরার জাল কেনাবেচা হয় বলে।

কুমিল্লার প্রখ্যাত মাওলানা নুর মোঃ ছিদ্দিকী সাহেব এ এলাকায় কোরান তফছির করতেন। তিনি প্রায় ৪০/ ৪৫
বছর পূর্বে এ মসজিদে তফছির করতে এসে এ মসজিদের নামকরণ করেন মসজিদে আকবর। পরে মসজিদে আকবর কমপ্লেক্স – করা হয়। কিন্তু লোকমুখে জালপট্টি মসজিদ নামেই তার পরিচিতি। তো ইতিহাস আরো আছে,মসজিদ সংলগ্ন যে পুকুরটি রয়েছে তার নাম “বইচা পুকুর “। জমিদার হাসি বাবুর বাবার ছিল অম্বলের রোগ। কবিরাজ বলেছে কলা, পেঁপের ঝোল খেতে। এই ঝোল রান্নার জন্য পুকুরে শিং, মাগুর আর বইচা মাছ চাষ হতো। এই জন্য এর নাম হয় বইচা পুকুর। আজ থেকে ৬০/৬৫ বছর পূর্বে পুকুর পাড়ে আগত কৃষক, ক্রেতা জনসাধারণ নামাজ পড়তেন। লোকজন ঘাটে গোসল করতো। নুনেরটেকের একজন মজ্জুব হালতের পীর হযরত মাওঃ নুরুল ইসলাম লালপুরী একদিন পুকুরের পূর্ব পাড়ে কয়েকজন মুরিদান নিয়ে সম্ভবত আছরের নামাজ পড়েন । নামাজ শেষে পুনরায় সেজদায় অবনত হন।

দীর্ঘক্ষণ হয়ে যায় মাথা তুলেন না । অনেক পরে মাথা
তুলে এক মুষ্টি মাটি হাতে নিয়ে বলে উঠেন,এই খানে
একটা মসজিদ হবে। মাটিতে আমি মসজিদের গন্ধ পাচ্ছি। বুজুর্গের কথা ফলে যায়,আজ ঠিকই এখানে মসজিদ, আলিয়া মাদ্রাসা, কওমী মাদ্রাসা গড়ে উঠেছে।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *