| ১৯শে আগস্ট, ২০১৯ ইং | ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৭ই জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী | সোমবার

কোনাবাড়ীতে অচেতন অবস্থায় এক নারী উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক | নরসিংদী প্রতিদিন-
মঙ্গলবার ১৩ আগস্ট ২০১৯:
মানুষ মানুষের জন্য জীবন জীবনের জন্য। গাজীপুর নগরীর কোনাবাড়ীতে এক মানবতার নজির সৃষ্টি করলো কোনাবাড়ী মেট্রোপলিটন থানার উপ- পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) আবু সাইদ। পবিত্র ঈদুল আযহার ছুটিতে যখন সবাই পরিবার পরিজনকে নিয়ে গ্রামের বাড়ীতে আনন্দ করছে ঠিক তখনি সাধারণ মানুষের জান মালের নিরাপত্তা ও যানজট নিরসনে কাজ করে যাচ্ছে কোনাবাড়ী মেট্রোপলিটন থানা পুলিশ।

ঈদের দ্বিতীয় দিন মঙ্গলবার (১৩ আগস্ট) দুপুর ১২ টা সময় কোনাবাড়ী কাশিমপুর রোডের মাথায় আফরোজা( ২৮) নামে এক নারীকে অজ্ঞান অবস্থায় পরে থাকতে দেখে থানায় খবর দেয় স্থানীয়রা। পরে খবর পেয়ে টহল টিমে থাকা কোনাবাড়ী মেট্রোপলিটন থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) আবু সাইদ মেয়েটিকে উদ্ধার করে শরীফ মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালে নেওয়ার পর ইমার্জেন্সিতে ভর্তি করে তাৎক্ষণিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন তিনি।

পুলিশ নরসিংদী প্রতিদিনকে জানায়, আফরোজা লালমনিরহাট জেলার কালিগঞ্জ থানার উত্তর দৌলত গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের মেয়ে এবং ভোলা জেলার রাকিবের স্ত্রী।
তারা কাশিমপুর থানাধীন সুলতান মার্কেট এলাকার মন্ডল কলোনির ভাড়াটিয়া। সে ভাড়া বাসায় থেকে জিএম এস গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে সুয়িং হেলপার হিসেবে কাজ করতো এবং তার স্বামী পেশায় ছিলো একজন ট্রাক ড্রাইভার।

তিনি আরো জানান, আফরোজার জ্ঞান আসার পর জানতে পারি ঈদের কিনা কাটা নিয়ে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। তার স্বামী আলটিমেটাম দিয়ে বসে তার মুখ আর দেখতে চায়না। পরে বাসা থেকে বের হয়ে আসে তার স্বামী। পরে সে জানতে পারে তার স্বামী গাজীপুর চৌরাস্তায় আছে। রবিবার( ১১ আগষ্ট) রাতে আফরোজা ছুটে চলে তার স্বামীর খোঁজে। কিন্ত তার স্বামীকে না পেয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়লে চৌরাস্তার ট্রাফিক বক্সের এক পুলিশের সহয়তায় শহিদ তাজ উদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। ট্রাফিক বক্সের পুলিশ সদস্য তার স্বামীর সাথে যোগাযোগ করলে সে বলে আমি নারায়ণগঞ্জ আছি যেতে পারবোনা।

হাসপাতালে একা থাকার পর সে আজ ১৩ আগষ্ট মঙ্গলবার পালিয়ে আসে বাসায় যাওয়ার জন্য। কোনাবাড়ী কাশিমপুর রোডের মাথায় এসে পরে যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে শরিফ মেডিকেলে নিয়ে আসি।

তিনি আরো বলেন, তার সাথে থাকা মোবাইল ফোন থেকে নাম্বার নিয়ে যোগাযোগ করা হয় তার দুই বোনের সাথে। তার স্বামীর সাথেও যোগাযোগ করা হয় কিন্তু তিনি আসতে অস্বীকৃতি জানান।

শরীফ মেডিকেলের ডাঃ খ.ম. শরীফ বলেন, দুইদিন ধরে না খাওয়াতে শরীর দূর্বল হয়ে গেছে। তিনি আরো বলেন,তার মুখমন্ডলে ক্ষতের দাগ রয়েছে। তবে ভয় পাবার কিছু নেই রোগী এখন আশংকা মুক্ত।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *