| ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং | ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ৩০শে জমাদিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী | মঙ্গলবার

নদীতে ঝাপ দিয়ে সম্ভ্রম বাঁচালো মাদ্রাসা ছাত্রী, মাধবদী থানায় অভিযোগ করেও বাড়ি ছাড়া পরিবার

খন্দকার শাহিন | নরসিংদী প্রতিদিন-
বৃহস্পতিবার ১৫ আগস্ট ২০১৯:
নরসিংদীতে বখাটেদের হাত থেকে বাঁচতে নৌকা থেকে নদীতে ঝাপ দিয়ে সম্ভ্রম রক্ষা করেছে ১০ম শ্রেণীর এক মাদ্রাসা ছাত্রী। এ ঘটনায় মাধবদী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়। এরপর থেকে আসামী পক্ষের অব্যাহত হুমকিতে প্রাণ ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে ভুক্তভোগীর পরিবার। গত মঙ্গলবার বিকেলে নরসিংদীর সদর উপজেলার মাধবদী থানার দক্ষিন চরভাসানিয়ায় এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী ছাত্রী ওই এলাকার নেওয়াজ আলীর কণ্যা। সে গোপালদী দাখিল মাদ্রাসার ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী।

জানা যায়, প্রায় কয়েক মাস ধরে একই এলাকার জালাল মিয়ার ছেলে মোক্তার নামে এক বখাটে যুবক তার সাঙ্গ-পাঙ্গদের নিয়ে ওই মেয়েটিকে উত্যক্ত করে আসছিলো। বিভিন্ন সময় তারা ওই মেয়েকে কুপ্রস্তাব সহ নানান হুমকি দিয়ে আসলেও ভয়ে তারা কারো কাছে নালিশও করতে পারছিলোনা। গত মঙ্গলবার বিকালে ওই মেয়ে আড়াইহাজার থানার গোপালদী থেকে প্রাইভেট পড়ে নৌকাযোগে চরভাসানিয়া ঘাটে এসে নামলে মোক্তার (২৫) নেতৃত্বে একই এলাকার জমির আলীর ছেলে সিফাত (২৬),বেতের আলীর ছেলে ইব্রাহীম(২৮) তার পথরোধ করে দাঁড়ায়। এক পর্যায়ে বখাটেরা মেয়েটিকে জোর করে নৌকায় তুলে নেয়। পরে সে সম্ভ্রম বাচাঁতে জীবনের মায়া না করে মেঘনার শাখা নদীতে লাফিয়ে পড়ে। সেখান থেকে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে। এ বিষয়ে বখাটেদের বিরুদ্ধে মাধবদী থানায় অভিয়োগ দায়েরে করেন তার মা কুহিনুর বেগম। অভিযোগের পর থেকে মোক্তার ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী ভুক্তভোগীর পরিবারকে প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে আসছে।

এদিকে অভিযোগের ভিত্তিত্বে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে আজ বৃহস্পতিবার(১৫ আগস্ট) দক্ষিন চরভাসানিয়ায় ঘটস্থল গিয়ে পরিদর্শন করেন থানার উপ-পরিদর্শক মো: মনির হোসেন। তিনি জানান তারা ওই এলাকায় থাকা কালেই মোক্তারের দলবলেরা ওই মেয়ের পরিবারের লোকজনকে পাকড়াও করে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ভুক্তভোগী পরিবারটি প্রাণের ভয়ে স্থানীয় মহিলা ইউপি সদস্যের আশ্রয়ে রয়েছেন।
মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু তাহের দেওয়ান নরসিংদী প্রতিদিনকে জানান, ঘটনাটি তিনি শুনেছেন। এব্যপারে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে এ ঘটনার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও তিনি জানান।

Print Friendly, PDF & Email

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published.