| ১৭ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ২রা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৭ই সফর, ১৪৪১ হিজরী | বৃহস্পতিবার

বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করতে পুরোহিতগণের ভূমিকা গ্রহণ করতে হবে …..সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন।

লক্ষন বর্মন। নরসিংদী প্রতিদিন-
বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯:
বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করতে পুরোহিতগণের ভূমিকা গ্রহণ করতে হবে।তাই কম বয়সী কোন বিয়ে আপনারা পড়াবেন না। বিশেষ করে আপনারা মেয়েদের জন্ম সনদ এর জন্ম তারিখ গুলোর প্রতি নজর দিয়ে বিবাহ পড়াবেন।
সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক, ইভটিজিং, নারী নির্যাতন ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে নরসিংদী জেলার পুরোহিতগণ এবং মন্দির ভিত্তিক গণশিক্ষা কার্যক্রম সংশ্লিষ্ট সুধিজনের সাথে মতবিনিময় সভার প্রধান অতিথির বক্ত্যবে জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ। সমাজের অসংগতি রোধে আইন প্রয়োগ না করে মানুষ হিসেবে পরিমাজন করে আমাদের সমাজকে উন্নত করতে হবে। বাংলাদেশকে অসম্প্রাদায়ীক সংহতির জনপদকে তৈরী করেছেন বঙ্গবন্ধু।যার মাধ্যমে দেশকে উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ গড়ার জন্য সুশাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দেশ গড়ে তুলতে হবে। এর ধারাবাহিকতার তার যোগ্য কন্যা এই অসম্প্রাদায়ীক বাংলা গড়ে তুলার কাজ করছে। সকলকে মাদকের বিরুদ্ধে সচেতন হতে হবে। মাদককে লাল কার্ড দেখাতে হবে।মাদকের বিরুদ্ধে নিজেরা সচেতন হবো অন্যকেও সচেতন করবো।
তিনি আরো বলেন, পুরোহিতরা সমাজের সম্মানীত সুধীজন, আপনাদেরকে সমাজের সকল অসংগতি দূর করতে ভূমিকা রাখতে হবে। দূর্গাদেবীর দশ হাত দিয়ে যেমন দুষ্টের দমন করেছে আমাদেরকেও অনেক কাজ করতে হবে সমাজের অসংহতি দূর করার জন্য।

বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কমল কুমার ঘোষ এর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শাহেদ আহমেদ, নরসিংদী জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি প্রফেসর সূর্যকান্ত দাস, নরসিংদী সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর মোহাম্মদ আলী, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোতালিব পাঠান, নরসিংদী হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি প্রফেসর অহিভূষন চক্রবর্তী ও নরসিংদী জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক দিপক কুমার সাহা।
এসময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) সুষমা সুলতানা, সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহআলম মিয়া, নরসিংদী সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর গোলাম মোস্তফা মিয়াসহ নরসিংদী জেলার পুরোহিতগণ, জেলা উপজেলার পূজা উদযাপন পরিষদ ও হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক এবং জেলার সুধিজন উপস্থিত ছিলেন।
আলোচনা শেষে ২০১৮ সালে উৎযাপিত শারদীয় দূর্গা পূজায় শ্রেষ্ঠ পূজা মন্ডপের প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের হাতে সম্মাননা স্বরুপ ক্রেষ্ট তুলে দেন অতিথি গণ।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *