| ২০শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং | ৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২২শে রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী | বুধবার

শিবপুরে স্কুল শিক্ষক হারুন অর রশিদকে ফাঁসাতে বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর

নিজস্ব প্রতিবেদক | নরসিংদী প্রতিদিন –
শুক্রবার, ০৮ নভেম্বর ২০১৯ :
নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার কামরাব উচ্চ বিদ্যালয়ের সহ-প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলামের সাথে ফরম পূরণ এর দায়িত্ব দেয়াকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি ও ধস্তাধস্তি করে সহকারি শিক্ষক হারুন অর রশিদ।
এর জের ধরে কে-বা কারা বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর করে সহকারী শিক্ষক হারুন অর রশিদকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে একটি মহল।
৭ নভেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে কামরাব উচ্চ বিদ্যালয়ে
স্কুলের প্রধান শিক্ষক আখতারুজ্জামান এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন স্কুলের সহকারি প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম ও সহকারি শিক্ষক হারুনুর রশিদের মধ্যে শিক্ষার্থীদের ফরম পূরনের দায়িত্ব দেওয়াকে কেন্দ্র করে বাক বিতন্ডা হয়। বিষয়টি বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আ: সালাম ও আ: ছাত্তার থামিয়ে দেয়। পরবর্তীতে সহকারি শিক্ষক হারুনুর রশিদ ও তার সহযোগীরা অফিস কক্ষে ঢুকে সহ-প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলামকে মারধর করে কিন্তু হারুন অর রশিদ বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর করেনাই এবং কিভাবে ছবি ভেঙেছে তা আমি জানিনা। ঘটনা ঘটে শিক্ষকদের কক্ষে কিন্তু বঙ্গবন্ধুর ছবি ছিলো আমার কক্ষে। ঘটনার সময় ইচ্ছে করে কেউ বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর করেনাই। কিভাবে বঙ্গবন্ধুর ছবি ভেঙেছে আমি এবিষয়ে বলতে পারবোনা, আমি তখন বাহিরে ছিলাম।

অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষক হারুন অর রশিদ জানান, শিক্ষার্থীদের ফরম পূরণের বিষয়টি জানতে স্কুলের বারান্দায় প্রধান শিক্ষক আখতারুজ্জামান স্যারের সাথে কথা বলার সময় সহকারী প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম এসে আমার সাথে কাটাকাটি করে একপর্যায়ে আমাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি ঘটনা ঘটে। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর ছবি ছিলো প্রধান শিক্ষকের কক্ষে সেখানে কিভাবে বঙ্গবন্ধুর ছবি ভেঙেছে আমার জানা নাই। মিথ্যা অপবাদ দিয়ে আমাকে ফাঁসানোর জন্য উনারা এ অভিযোগ করছেন।
শিবপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোল্লা আজিজুর রহমান জানান, স্কুলের মারামারির বিষয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন প্রধান শিক্ষক। অভিযুক্ত হারুন অর রশিদকে আটক করা হয়েছে। ঘটনা সঠিক তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *