শুক্রবার | ৩রা জুলাই, ২০২০ ইং |

জার্মানির বার্লিনে দৃষ্টিনন্দন ‘খাদিজা মসজিদ’

ধর্ম ডেস্ক | নরসিংদী প্রতিদিন- জার্মানির খাদিজা মসজিদ । মসজিদ হাইনার্সডর্ফ, পাংকু, বার্লিনে অবস্থিত। এটি আহমদিয়া মুসলিম সম্প্রদায়ের সম্পত্তি, এবং সাবেক পূর্ব জার্মানির প্রথম মসজিদ। মসজিদটি ১৬ অক্টোবর,২০০৮ এ খোলা হয়।

মসজিদে রয়েছে ৩৯ ফুট (১২ মি) উচ্চ মিনার এবং ৫০০ জন মুসল্লি একসাথে নামাজ পড়তে পারবেন। মসজিদটি আহমদিয়া মহিলাদের দ্বারা সংগৃহীত তহবিল দ্বারা অর্থায়ন করা হয়েছিল এবং নকশাটি স্থপতি মুবাশ্রা ইলিয়াস করেছিলেন। লাহোর আহমদিয়া আন্দোলনের মাধ্যমে ১৯২৪ থেকে ১৯২৮ সালের মধ্যে বার্লিনে আরেকটি মসজিদ নির্মিত হয়েছিল।

এই মসজিদটির ইতিহাস হচ্ছে- আহমদিয়া মুসলিম জামায়াত ১৯২০ সালে বার্লিনে ইউরোপে তাদের প্রথম মসজিদটি তৈরির চেষ্টা করেছিল। দ্বিতীয় খলিফার ইচ্ছা অনুযায়ী সম্প্রদায়ের মহিলারা তাদের নিজস্ব সম্পদ থেকে মসজিদের জন্য সমস্ত তহবিল সংগ্রহ করেছিলেন। তবে জার্মানিতে আর্থিক সঙ্কটের কারণে পরিকল্পনাটি ছেড়ে দিতে হয়েছিল।

পরিবর্তে, এই অর্থটি লন্ডনে ফজল মসজিদ নির্মাণের জন্য ব্যবহৃত হয়েছিল। জার্মানিতে মুসলিম সম্প্রদায়ের ১০০-মসজিদ-পরিকল্পনার আওতায় এই প্রকল্পটি পুনরুদ্ধার করা হয়েছিল এবং বার্লিনে একটি নতুন মসজিদ করার পরিকল্পনা করা হয়েছিল। খাদিজা মসজিদটি বার্লিনের পূর্ব অংশের প্রথম মসজিদ।

মসজিদটির নির্মাণ তথ্য- মসজিদটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয় সম্প্রদায়টির ৫ম খলিফা মির্জা মাসরুর আহমদ দ্বারা ২ জানুয়ারি ২০০৭ সালে। মসজিদটি এক টুকরো জমিতে নির্মিত যা ৪৭৯০ স্কয়ার মিটার বৃহৎ। এটি নিয়ে দুটি গল্প প্রচলিত আছে।

এখানে দুটি প্রার্থনা কক্ষ রয়েছে। একটি ২৫০ জন মহিলা এবং আরেকটি ২৫০ জন পুরুষদের জন্য। মসজিদটির নকশা করেছিলেন সম্প্রদায়ের স্থপতি মুবাশ্রা ইলিয়াস। নির্মাণের তদারকি করেছিলেন স্থপতি সংস্থা পাকডেল। মসজিদের গম্বুজটি উচ্চতা ৪.৫ মিটার এবং ব্যাস ৯ মিটার। মসজিদের মিনারটি ১৩ মিটার উঁচু। মসজিদটি নির্মাণ, ইমামের আবাসনের জন্য একটি বিল্ডিং, ‘মসজিদের ভৃত্যদের’ এবং অফিসগুলির জন্য মোট ব্যয় হয়েছিল প্রায় ১.৭ মিলিয়ন ডলার।

follow and like us:
0

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা