1. khandakarshahin@gmail.com : Breaking News : Breaking News
  2. laxman87barman@gmail.com : laxman barman : laxman barman
  3. shahinit.mail@gmail.com : narsingdi : নরসিংদী প্রতিদিন
  4. msprovat@gmail.com : ms provat : ms provat
  5. hsabbirhossain542@gmail.com : সাব্বির হোসেন : সাব্বির হোসেন
বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৫৪ পূর্বাহ্ন

নরসিংদী জেলা প্রশাসনের আয়োজনে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে ব্যাপক কর্মসূচী

ডেস্ক রিপোর্ট | নরসিংদী প্রতিদিন
  • প্রকাশের তারিখ | শনিবার, ২৪ মার্চ, ২০১৮

নরসিংদী প্রতিদিন,শনিবার,২৪ মার্চ ২০১৮: ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। বাঙালির হৃদয়ে রক্তের অক্ষরে লেখা একটি দিন। মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তোলার শপথে নরসিংদী জেলা প্রশাসন তথা জাতি আজ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন করবে।

২৫ মার্চের কর্মসূচীর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে, নরসিংদী জেলা তথ্য অফিসের বাস্তবায়নে গণহত্যাে উপর দুর্লভ আলোকচিত সুবিধাজন সময়ে জনবহুল স্তানে প্রদর্শন করা। আজ ২৫ মার্চ সন্ধ্যা ৭টায় নরসিংদী সার্কিট হাউজের সামনে থেকে প্রেসক্লাবের সামনে পর্যন্ত মোমবাতি প্রজ্জলন করা হবে। মোমবাতি প্রজ্জলনে নরসিংদীর জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইনসহ জেলার সকল দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, মুক্তিযোদ্ধাসহ সর্বস্তরের লোকজন অংশগ্রহণ করবে। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় গণহত্যা ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান জেলা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়াও বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ করেছে জেলা প্রশাসন।
২৬ মার্চের কর্মসূচীর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে, প্রত্যুষে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে মোসলেহ উদ্দিন ভূইয়া স্টেডিয়ামে দিবসের শুভ সূচনা করা হবে। জেলার সকল সরকারি, আধা সরকারি, সায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি ভবনে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও সূর্যাস্তের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা অবনমন করা হবে। সকাল ৭টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভে জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন এর নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে। সকাল ৮টায় সারাদেশের ন্যায় নরসিংদী মোসলেহ উদ্দিন ভূইয়া স্টেডিয়ামে একযোগে শুদ্ধভাবে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হবে। সকাল ৮টায় জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন কর্তৃক স্টেডিয়ামে জাতীয় পতাকা উত্তোলন এবং প্যারেড কুচকাওয়াজে সালাম গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

সকাল সাড়ে ৮টায় মোসলেহ উদ্দিন ভূইয়া স্টেডিয়ামে শিশু কিশোরদের ডিসপ্লে অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ১০টায় শিশুদের জন্য মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক চিত্রাঙ্কণ ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতা জেলা শিশু একাডেমিতে অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ১১টায় মাধবদীর মমতা সিনেমা হলে ছাত্রীদের জন্য ও দুপুর সাড়ে ১২টায় ছাত্রদের জন্য পাঁচদোনা ঝংকার সিনেমা হলে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক প্রামাণ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে। সুবিধামতো সময়ে জাতির অগ্রগতি ও অব্যাহত শান্তি, সমৃদ্ধি এবং শহীদ/প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধাদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে জেলার মসজিদ, মন্দির ও অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ে মোনাজাত/প্রার্থনা করা হবে। সকাল সাড়ে ১১টায় বীর মুক্তিযোদ্ধা, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান জেলা শিল্পকলা একাডেমী পুরাতন ভবনে অনুষ্ঠিত হবে। বিকেল ৩টায় নরসিংদী আইডিয়াল স্কুলে মহিলাদের জন্য ক্রীড়ানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। বিকেল সাড়ে ৩টায় জেলা প্রশাসক একাদশ বনাম বীর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ একাদশের প্রীতি ফুটবল ম্যাচ জেলা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে।

সন্ধ্যা ৭টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে ২৬ মার্চের উপর আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। সকল অনুষ্ঠানে সবান্ধব উপস্থিতি কামনা করেছেন নরসিংদীর জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন।
উল্লেখ্য, এক সাগর রক্তের বিনিময়ে ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ স্বাধীনতা অর্জনের ঘোষণা দেয় বাংলাদেশ। ৫২-এর ভাষা আন্দোলন, ৫৪-এর যুক্তফ্রন্ট নির্বাচনে জয়লাভ, ৫৬-এর সংবিধান প্রণয়নের আন্দোলন, ৫৮-এর মার্শাল ’ল বিরোধী আন্দোলন, ৬২-এর শিক্ষা কমিশন বিরোধী আন্দোলন, ৬৬-এর বাঙালির মুক্তির সনদ ৬-দফার আন্দোলন, ৬৯-এর রক্তঝরা গণঅভ্যুত্থানের পথ পেরিয়ে ৭০-এর ঐতিহাসিক সাধারণ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন সবই বাঙালি জাতির স্বাধীনতা সংগ্রামের একেকটি গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাসের মাইলফলক।

এরপর ৭১ সালের ৭ মার্চ ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষন এবং ২৫ মার্চ কালরাত্রিতে নিরস্ত্র বাঙালির উপর পাক-হানাদার বাহিনী নির্বিচারে গণহত্যা চালানোর পর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গ্রেপ্তারের পূর্ব মুহূর্তে বাঙালি জাতিকে পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্ত করতে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা দেয়ার মাধ্যমে বাঙালির চূড়ান্ত মুক্তির সংগ্রাম শুরু হয়।

জাতির পিতার আহ্বানে সাড়া দিয়ে বাংলার মুসলিম, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টানসহ সর্বস্তরের জনগণ জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে ঐক্যবদ্ধভাবে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে। দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী গৌরবোজ্জ্বল সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদের আত্মত্যাগ ও দুই লক্ষ মা বোনের সম্ভ্রমহানির বিনিময়ে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বাংলার জনগণ স্বাধীনতা অর্জন করে।



এই পাতার আরও সংবাদ:-





DMCA.com Protection Status
টিম-নরসিংদী প্রতিদিন এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে শাহিন আইটি এর একটি প্রতিষ্ঠান-নরসিংদী প্রতিদিন-
Theme Customized BY WooHostBD