1. nahidprodhan143@gmail.com : নরসিংদী প্রতিদিন : নরসিংদী প্রতিদিন
  2. khandakarshahin@gmail.com : Breaking News : Breaking News
  3. laxman87barman@gmail.com : laxman barman : laxman barman
  4. narsingdipratidin.mail@gmail.com : narsingdi :
  5. news@narsingdipratidin.com : নরসিংদী প্রতিদিন : নরসিংদী প্রতিদিন
  6. msprovat@gmail.com : ms provat : ms provat
  7. hsabbirhossain542@gmail.com : সাব্বির হোসেন : সাব্বির হোসেন
  8. subeditor@narsingdipratidin.com : Narsingdi Pratidin : Narsingdi Pratidin
শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:৫৭ পূর্বাহ্ন



রায়পুরায় পুলিশ ও গ্রামবাসী সংঘর্ষে ১০ পুলিশ সহ আহত ২৫ প্রায় ৮শত ব্যক্তিকে আসামী করে পুলিশের মামলা

রিপোর্টারের নাম
  • প্রকাশিত শনিবার, ২৭ মে, ২০১৭

লক্ষন বর্মন, নরসিংদীঃ: নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার চরাঞ্চল বাঁশগাড়ীতে পুলিশ ও গ্রামবাসী মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় ওসি আজহারুল ইসলাম সরকার এবং ১০ পুলিশ সদস্য সহ কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছে। এসময় উত্তেজিত গ্রামবাসী ৩ পুলিশ সদস্যকে আটক করে নিয়ে গেলেও পরবর্তিতে বিশেষ অভিযানে তাদেরকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানান রায়পুরা থানার সেকেন্ড অফিসার আল মামুন। এ ঘটনায় ৮/১০ জন গ্রামবাসীকে আটক করা হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেলেও পুলিশ বলছে কাউকে আটক করা হয়নি। পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় শাহেদ সরকার সমর্থক রুপু মেম্বারকে প্রধান করে ২৬জনের নামে এবং অজ্ঞাত আরো ৭/৮শ ব্যক্তিকে আসামী করে পুলিশ বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
শুক্রবার সন্ধায় রায়পুরা থানা পুলিশ ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামী ধরতে গেলে আওয়ামীলীগ নেতা শাহেদ সরকার সমর্থিত গ্রামবাসীর সাথে পুলিশের সংঘর্ষ বাঁধে। এই ঘটনার পর থেকে এলাকাটিতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে নদী ও সড়কপথে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
নিবাচনী সহিংসতা ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে উপজেলার চরাঞ্চল বাঁশগাড়ীতে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান শাহেদ সরকার ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল হকের সমর্থকদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। এরই জের ধরে চলতি ৮ মে দুই পক্ষের রক্তক্ষয়ী টেঁটা ও বন্ধুকযুদ্ধে ২ জন নিহত হয়। এছাড়া গত কয়েক মাসব্যাপী সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ৭ জন নিহত হয়। আহত হয় কমপক্ষে দুই শতাধিক গ্রামবাসী। নিহত ৫ জন সাবেক চেয়ারম্যান সাহেদ সরকারের সমর্থক। অপর দুই জন বর্তমান চেয়ারম্যান সিরাজুল হকের সমর্থক। এ ঘটনায় উভয় পক্ষ এক অপরের বিরুদ্ধে পাল্টা-পাল্টি মামলা দায়ের করেন।
শুক্রবার রায়পুরা থানা পুলিশ ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামী ধরতে বাঁশগাড়ী এলাকায় অভিযান চালায়। ওই সময় পুলিশ শাহেদ সমর্থক রুপু মেম্বার ও আজিম মিয়া সহ ৪ জনকে আটক করে। এতে উত্তেজিত হয়ে যায় গ্রামবাসী। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ গ্রামবাসীর উপর লাঠি চার্জ করেন। পরে উত্তেজিত জনতা সংঘবদ্ধ হয়ে পুলিশের উপর হামলা চালায়। এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। সংঘর্ষে ওসি মোঃ আজহারুল ইসলাম সরকার এবং ১০ পুলিশ সদস্যসহ কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়। আহত পুলিশ সদস্যের মধ্যে কন্সটেবল হামিদুল্লাহ, হিফজুবুল ও নায়েক হানিফকে মুমুর্ষ অবস্থায় নরসিংদী জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এদিকে রুপু মেম্বার ও আজিম মিয়া সহ ৪ জনকে আটকের প্রতিবাদে গ্রামবাসী ৩ পুলিশ সদস্য আটক করে নিয়ে যায়। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে পুলিশ সদস্যদেরক উদ্ধার করে। এসময় আটককৃতদেরকে হামলাকারীরা ছিনিয়ে নিয়ে গেছে বলে জানান পুলিশ।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সময় বাঁশগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদে আওয়ামীলীগের প্রার্থী ছিলেন বাশগাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাফিজুর রহমান সাহেদ সরকার। কিন্তু নির্বাচনে স্থানীয় সংসদ সদস্য রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজুর পছন্দের প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সিরাজুল হক চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়। এরপর থেকে দুই পক্ষের মধ্যে বেশ কয়েকবার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
রায়পুরা থানার ওসি তদন্ত মোঃ মাহজারুল ইসলাম বলেন, রুপু মেম্বারকে আটক করা হয়েছিল হামলাকারীরা তাকে ছিনিয়ে নিয়ে গেছে। পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় ২৬জনের নামে ও অজ্ঞাত আরো ৭/৮শ ব্যক্তিকে আসামী করা হয়েছে। পরবর্তি সহিংসুতা এড়াতে ঘটনাস্থলে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

follow and like us:
0

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
শাহিন আইটির একটি অঙ্গ-প্রতিষ্ঠান