| ২৫শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং | ১২ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৯শে জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী | শনিবার

বিমান বিধ্বস্তে নিহতদের স্মরণে আলোক প্রজ্বলন

নিউজ ডেস্ক,নরসিংদী প্রতিদিন,বুধবার, ১৪ মার্চ ২০১৮:
নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের স্মরণে আলোক প্রজ্বলন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্লোগান-৭১। একইসাথে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় বাংলাদেশের বিভিন্ন মেডিকেল কলেজে অধ্যয়নরত নেপালি শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার (১৩ মার্চ) সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) প্রবেশমুখে স্লোগান-৭১ আর ঢাবির সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে শিক্ষার্থীরা এ কর্মসূচি পালন করেন।

নেপালে বিমান বিধ্বস্তে হতাহতের ঘটনায় শোকাতুর জাতি। মাতম চলছে ফেসবুকসহ অন্যান্য মাধ্যমে। রক্তের বাঁধন ছাড়াও যে কারও মৃত্যুতে হৃদয়ে ক্ষত তৈরি করতে পারে, তার প্রমাণ ইউএস-বাংলার ফ্ল্যাইট বিধ্বস্তে মৃতরা। প্রিয়জন হারানোর বেদনায় স্বজনদের আহাজারিতে ভারি বাংলার আকাশ। সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বেঁচে থাকাদের পরিবারের মৃত্যু সংবাদের অপ্রত্যাশিত উৎকণ্ঠা।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী, বিমানটিতে ৬৭ আরোহীর মধ্যে ৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে, এর মধ্যে পাইলট, ক্রুসহ ২৬ বাংলাদেশি মারা গেছেন। নিহতদের মধ্যে বাংলাদেশের রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজের ১৩ জন নেপালি শিক্ষার্থী ছিলেন। এদের ১১ জনই নিহত হয়েছেন। এ খবরে শোকের ছায়া বইছে পুরো বাংলায় ও নেপালে। আহতদের সুস্থতা কামনায় ও নিহতদের পরপারে ভালো রাখতে স্রষ্টার দরবারে হাত তুলেছেন সব ধর্মের মানুষ। সারাদেশে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় স্মরণ করা হচ্ছে নিহতদের।
এরই ধারাবাহিকতায় টিএসসিসংলগ্ন সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা ও স্যালুট দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

এ সময় তারা বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন। যাতে ‘হার্টফেল্ট কনডোলেন্স টু অল দ্য প্রিভিয়াস সোলস অব প্লেন ক্র্যাশ ইন নেপাল’, ‘ব্ল্যাক ডে ফর মেডিকেল ফ্রেন্ডস’,‘উই মর্ন ফর অল দ্য ডিপার্টেড সোল অব ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন ক্র্যাশ’,‘ডেথ লিভস এ হার্টেক, নো ওয়ান ক্যান হিল, লাভ লিভস এ মেমোরি, নো ওয়ান ক্যান স্টিল ‘ ও ‘রেস্ট ইন পিস’ ইত্যাদি লেখা ছিল।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নেপালি শিক্ষার্থী ডা. জাস গুরুং বলেন, যারা বিমান দুর্ঘটনায় মারা গেছেন, তাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাই৷ তাদের সকলের মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত।

Print Friendly, PDF & Email

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *