| ২৫শে আগস্ট, ২০১৯ ইং | ১০ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৩শে জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী | রবিবার

বিধ্বস্ত হওয়া বিমানে প্রাণে বেঁচে যাওয়ার কারণ বললেন শাহরিন

নরসিংদী প্রতিদিন ডেস্ক,শুক্রবার, ১৬ মার্চ ২০১৮:
বিধ্বস্ত হওয়া বিমানের সামনের দিকে থাকায় প্রাণে বেঁচে গেছেন বলে মনে করছেন শাহরিন আহমেদ, দুর্ঘটনার পর নেপালি সৈন্যরা তাকে টেনে বের করে বলে জানিয়েছেন তিনি।

নেপালে ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজ বিধ্বস্তের ঘটনায় আহত শাহরিনকে বৃহস্পতিবার (১৫ মার্চ) দেশে এনে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। তার শরীরে পোড়ার ক্ষত ও পায়ে চিড় ধরলেও তিনি আশঙ্কামুক্ত বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের উড়োজাহাজ দুর্ঘটনায় আহত শাহরিন আহমেদকে দেশে ফেরানোর পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। বিকালে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তির পর তার ভাই সরফরাজ আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, ওই দুর্ঘটনায় যারা বেঁচে গেছেন তাদের মধ্যে শাহরিনের শারীরিক অবস্থাই ‘সবার চেয়ে ভালো’।

নেপালের চিকিৎসকরা বলেছেন, তার একটা মাইনর অপারেশন লাগতে পারে। সেজন্য তাকে তারা রাখতে চেয়েছিলেন। ওখানে থাকলে ইনফেকশনও হতে পারত। প্রয়োজন হলে অপারেশনটি এদেশেও করা সম্ভব বলে তাকে বাংলাদেশে নিয়ে এসেছি। তার শারীরিক অবস্থা ভালো। তবে পায়ে একটা ফ্রাকচার আছে।

শাহরিনের বরাত দিয়ে দুর্ঘটনা সম্পর্কে তিনি বলেন, সে বিমানের সামনের দিকে ছিল। সেখানে ছিল বলে বেঁচে গেছে। নেপালি সেনা সদস্যরা তাকে টেনে বের করেছে। তা না হলে হয়ত সে বের হতে পারত না।

গত ১২ মার্চ কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়ে ৭১ আরোহীর মধ্যে ৪৯ জনের মৃত্যু হয়। তাদের মধ্যে চার ক্রুসহ ২৬ জন ছিলেন বাংলাদেশি। আহতদের মধ্যে ১০ জন বাংলাদেশি, তাদের মধ্যে স্কুল শিক্ষক শাহরিনই প্রথম দেশে ফিরলেন।

রাজধানীর স্কলাসটিকা স্কুলের উত্তরা শাখার জুনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার শাহরিন একটি ট্যুরিস্ট দলের সঙ্গে নেপাল যাচ্ছিলেন। কাঠমান্ডু মেডিকেল কলেজে চিকিৎসা দেওয়া হয় তাকে। এই অবস্থায় শাহরিনের কাছে যাওয়া থেকে বিরত থাকতে সাংবাদিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তার ভাই বলেন, সে কিছুটা ট্রমাতে রয়েছে। এত বড় একটা দুর্ঘটনা নিজে দেখে এসেছে। অনেক দূর জার্নি করে এসেছে।

ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক সামন্ত লাল সেন বলেন, শাহরিন আহমেদের শারীরিক অবস্থা ভালো আছে, স্থিতিশীল রয়েছে। তার শরীরের বার্নের পাশাপাশি ফ্র্যাকচার রয়েছে। শরীরের ৫ শতাংশে ডিপ বার্ন রয়েছে। পায়ে ফ্র্যাকচার রয়েছে। তার কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হবে। তবে সব কিছু মিলিয়ে ভালো আছেন।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *