| ২০শে জুলাই, ২০১৯ ইং | ৫ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৬ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী | শনিবার

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাবীব

নিজস্ব প্রতিবেদক । নরসিংদী প্রতিদিন-
বৃহস্পতিবার ৪ এপ্রিল ২০১৯: গত ৩১মার্চ অনুষ্ঠিত নরসিংদী সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে পৃথক ঘটনায় প্রতিপক্ষের হামলায় নারীসহ অন্তত আটজন আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এসব ঘটনায় আহতদের নরসিংদী জেলা হাসপাতাল ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে আহতদের স্বজনরা জানান। নির্বাচনে জয়-পরাজয় ও পূর্বশত্রুতার জের ধরে মাধবদীর আমদিয়া, মহিষাশুড়া, কাঠালিয়া ইউনিয়নে এসব ঘটনা ঘটে। নির্বাচনের দিন নৌকার সমর্থক নেয়ামত উল্লাহ উল্লাহগংদের হামালায় গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসাধীন রয়েছেন আমদিয়া ইউনিয়নের মৃত হোসেন আলীর ছেলে আনারস প্রতীকের সমর্থক হাবীবুর রহমান (হাবি মিয়া)। একই ঘটনায় আহত হয়েছেন নকো মিয়া ও তার শ্বাশুড়ী আনোয়ারা বেগম। তারা সবাই আনারস মার্কার সমর্থক ছিলো। এঘটনায় গত বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) মাধবদী থানায় আহত হাবীর স্ত্রী আছমা বাদী হয়ে পাঁচ জনে বিরুদ্ধে একটি মামলা রুজু করেন। যাহার নং-০৪ তারিখ-০৪/০৪/১৯ দ্বারা-১৪৩/৪৪৮/৩২৩/৩২৪/৩২৫/৩২৬/৩০৭/৩৫৪/৩৭৯/৪২/১১৪/৫০৬। এ মামলার আসামী নেয়ামত উল্লাহ এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, তিনি নৌকা মার্কার সমর্থক ছিলেন। নির্বাচনী সহিংসতায় উভয়ের মাঝে সংঘর্ষ বাধে। এতে তার দুই ছেলে নুরুজ্জামান (২৮) ও মনির হোসেন প্রতিপক্ষের হামলার শিকার হয়ে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে চিকিসৎসাধীন রয়েছে। নেয়ামত উল্লাহ বাদী হয়েও একটি মামলা দায়ের করেন মাধবদী থানায়।

এদিকে গত বুধবার (৩ এপ্রিল) কাঠালিয়া ইউনিয়নে নির্বাচনে আনারস মার্কার সমর্থক ডৌকাদী গ্রামের মৃত: আকবর হোসেন এর ছেলে আলী হোসেন আলীকে মারধর করেছে নৌকার সমর্থক স্থানীয় ইউপি সদস্য নুর ইসলাম। ইউপি সদস্য নুর ইসলাম আলী হোসেনকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমুক প্রদান করছে বলে জানান তিনি।

এর আগে নির্বাচনের দিন বাড়ি ফেরার পথে পুর্বশত্রুতার জের ধরে হামালার শিকার হয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধিন রয়েছে মহিষাশুড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মিলন মিয়া। তিনি নৌকা মার্কার সমর্থক ছিলেন। একই ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড বালুসাইর আলগা পাড়া গ্রামের বাসিন্দা। এ হামলার ঘটনায় ২৯ জনকে আসামী করে মাধবদী থানায় মামলা দারের করা হয়েছে বলে জানান পুলিশ।
এদিকে, নির্বাচনে জয়লাভের পরপর মাধবদী থানা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ মাসুদ খান অপূর্ব তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে এক পোস্টের মাধ্যমে নৌকার বিরুদ্ধে নির্বাচনে অংশগ্রহণকারীদেরকে খেলা দেখানোর হুমকি প্রদান করেন। এতে তিনি বলেন- নৌকার বিরুদ্ধে যারা নির্বাচনে অংশ নিয়েছো, তারা এবার বুঝবে যে কত ধানে কতচাল। খেলা হবে। এতে প্রতিপক্ষের কর্মী, সমর্থকরা আতঙ্কে রয়েছে।

উল্লেখ্য, নরসিংদী সদর উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ থেকে নৌকা প্রতিকে আলহাজ্ব মোঃ সফর আলী ভুঁইয়া ও স্বতন্ত্র থেকে আনারস প্রতিকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন আলহাজ্ব মোঃ আনোয়ার হোসেন। এনির্বাচনে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী সফর আলী ভুঁইয়া বিজয়ী হলেও মাধবদী পৌরসভা, নুরালাপুর, কাঁঠালিয়া, মহিষাশুড়া, পাইকারচর ও আমদিয়ায় তাদের ভরাডুবি হওয়ায় এসব এলাকার আনারস প্রতিকের সমর্থকদের নানাভাবে তারা হুমকি ও ভয়-ভীতি দেখিয়ে আসছে। এতে গোটা এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *