| ১৬ই জুলাই, ২০১৯ ইং | ১লা শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১১ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী | মঙ্গলবার

ফুলন বর্মণের মরদেহ বিকেলে বাড়িতে পৌছালে স্বজনদের আহাজারি

স্টাফ রিপোর্টার। নরসিংদী প্রতিদিন-
বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯ঃ
নরসিংদীতে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে এবং সম্পত্তির লোভে পরিকল্পিতভাবে কলেজ ছাত্রী ফুলন বর্মণকে পুড়িয়ে হত্যার কথা স্বীকার করে পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে ফুফাতো ভাই ভবতোষ বর্মণ। নৃশংস এ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন স্বজন ও এলাকাবাসী।
নরসিংদী পৌর শহরের বীরপুর মহল্লার কলেজ ছাত্রী ফুলন বর্মণের বাবা যোগেন্দ্র বর্মনের সঙ্গে, জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল প্রতিবেশী শুকলালের। ফুলনের গায়ে আগুন দিয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোর পরিকল্পনা করে তারই ফুফাতে ভাই ভবতোষ বর্মন। পাশাপাশি ফুলনের কোন আপন ভাই না থাকায় ওই সম্পত্তির মালিক হওয়ারও লোভ ছিলো তার।

তিন বন্ধু- রাজু সূত্রধর, ভবতোষ বর্মন ও আনন্দ বর্মন।

আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এরকম ভয়ানক তথ্য দিয়েছে গ্রেফতারকৃত ভবতোষসহ তার সহযোগী আনন্দ ও রাজু এমন তথ্য দিয়েছে বলে জানায় পুলিশ।
ফুলনের স্বজনরা জানান, মৃত্যুর আগে তেমন কোনো তথ্য দিতে না পারায়, ঘটনার পরদিন গত ১৪ জুন অজ্ঞাত তিন জনকে আসামি করে মামলা করেন ফুলনের বাবা।
এদিকে, ফুলনের মর্মান্তিক মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে পুরো এলাকায়। নৃশংস এই হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

গত ১৩ জুন রাতে দোকান থেকে বাসায় ফেরার পথে ফুলনের শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায় দৃর্বৃত্তরা। গুরুতর অবস্থায় ১৩ দিন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায়, বুধবার সকালে তার মৃত্যু হয়। গত বছর সদরের উদয়ন কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয় ফুলন।

সময় বাচাঁতে ঘরে বসে কেনা-কাটা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *